ঢাকা ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

দেশের প্রথম বেসরকারি মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র

জাহেদুল ইসলাম, একাত্তর
প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০২১ ১২:১৯:৩৫
দেশের প্রথম বেসরকারি মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র

দেশে বেসরকারি পর্যায়ে প্রথম মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র তৈরির কাজ এখন শেষের দিকে। আয়োজকরা বলছেন, গাজীপুরের শ্রীপুরে শালবনের পাশে, বিন্দুবাড়ির বেনুর ভিটায় দূষণমুক্ত পরিবেশে একটি বহুমুখী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রও হবে এটি। এরইমধ্যে এখানে পরীক্ষামূলকভাবে মহাকাশ পর্যবেক্ষণও শুরু হয়েছে। 


দেশে সবচেয়ে বড় ১৪ ইঞ্চি ডায়ামিটার মিড টেলিস্কোপে সৌরজগতের বৃহত্তম গ্রহ বৃহস্পতিকে দেখছেন একদল মহাকাশপ্রেমী।

মহাকাশ পর্যবেক্ষণের জন্য ধুলা, ধোঁয়া এবং নীরব অন্ধকার পরিবেশ দরকার। এমনই কোলাহলমুক্ত পরিবেশে এবং রাতের বেলায় সৌর জগতের সবচেয়ে বড় এই গ্রহের লাল এবং কমলা বর্ণের সৌন্দর্যে খেলায় মুগ্ধ সবাই। 


গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বিন্দুবাড়ীতে এই পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র তৈরির স্বপ্ন দেখেন ঢাকার মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধ ও উড্ডয়ন বিদ্যার গবেষক মোহাম্মদ শাহজাহান মৃধা। পৌরাণিক জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক ঐতিহ্যমণ্ডিত আঙিনায় স্থাপিত হয়েছে মহাকাশ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র ও পর্যবেক্ষণ উঠান। 

আরও পড়ুন: চাইলেও ডুবতে পারবেন না যে সাগরের জলে

কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ছোট বেলা থেকেই মহাকাশের প্রতি দুর্নিবার আকর্ষণ ছিলো। তাই কখনো বিজ্ঞান জাদুঘরের ছাদে অথবা বেইলি রোডে নিজ বাড়ির ছাদেই স্থাপন করেছিলেন মহাকাশ পর্যবেক্ষণ এর অবজারভেটরি, সংগ্রহ করেছিলেন বিভিন্ন মানের ও জাতের শক্তিশালী টেলিস্কোপ। কিন্ত ঢাকার ধুলা-ধোঁয়া-আলোর দূষণে সেই পর্যবেক্ষণ ঠিকমত করা সম্ভব হচ্ছিলনা। অবশেষে বহু কাঠখড় পুড়িয়ে সম্পূর্ণ ব্যক্তি উদ্যোগে গাজীপুরের বিন্দুবাড়িতেই প্রতিষ্ঠা করলে মহাকাশ পর্যবেক্ষণের স্থায়ী কেন্দ্র। 

তিনি জানালেন, কেন্দ্রটি স্থাপন হচ্ছে ২০ একর জায়গা জুড়ে। এখনো চলছে প্রাথমিক কাজ, তবুও এরই মাঝে মহাকাশপ্রেমীদের মধ্যে তৈরি করতে পেরেছ ব্যাপক আগ্রহ। 


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন