ঢাকা ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

ফারিয়ার হাত ভাঙার ঘটনা মিথ্যে: অপু

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ ২১:২০:৪৪ আপডেট: ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ ২১:৩৩:৪৫
ফারিয়ার হাত ভাঙার ঘটনা মিথ্যে: অপু

বিয়ে ভাঙার এক বছরের মাথায় সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া।

ফারিয়া লিখেছিলেন, 'স্বামী অপুর নির্যাতনের কারণে তাঁর হাত ভেঙে যায়। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে শুক্রবার বিকেলে স্বামী অপু তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, প্রেম, বিয়ে কিংবা একটা সম্পর্কের মাঝে নানা চড়াই-উতরাই থাকে।


আবেগ, রাগ, হাসি-কান্না, সুখ-দুঃখ মিলিয়েই এক একটা সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমার বিয়ে টেকেনি, এটা নিয়ে আমার সাবেক স্ত্রী অনেক বয়ান, স্ট্যাটাস, মতবাদ দিলেও এত দিন পর্যন্ত আমি কিছুই বলিনি, হয়তো আর বলবও না। ভেবেছি বোবার শত্রু নাই। কিন্তু যা দেখছি, চুপচাপ থেকে সম্মান দিয়ে গেলে অনেকে সেই সুযোগ নেয়।’  

অপু লিখেছেন, তার হাত ভাঙার ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যে। 


সম্পর্ক ভাঙার ক্ষেত্রে দুজনেরই দোষ থাকে উল্লেখ করে অপু লিখেছেন, ‘অভিযোগ দুই দিকেই থাকে, আমরা কেউই সন্ন্যাসী না। দিনের পর দিন কারও আসমান সমান অভিযোগ থাকলে, আরেক দিকে পাহাড় সমান থাকারই কথা। অভিযোগকে পুঁজি করে নিজেকে সাধু সাজিয়ে ভিকটিম হিসেবে প্রকাশ করা অনেকের অভ্যাস হতে পারে। তবে এই পথে আমি এখনো যেতে পারিনি।’


অপু বলেছেন, ‘সম্পর্ক না থাকলেও পারস্পরিক শ্রদ্ধার জায়গাটি বজায় রাখা জরুরী। বলেছেন, পাশে থেকেও শ্রদ্ধা রাখা যায়, দূরে থেকেও। নিজেকে ভিকটিমের মতো উপস্থাপন করে বিভ্রান্তিমূলক মতবাদ আসলেই দুঃখজনক। লিখেছেন, যখন একটা মানুষকে জনসাধারণ অনুসরণ করে, তার দিক থেকে একটাই কথা মাথায় রাখা উচিত, ক্ষমতার সঙ্গে দায়িত্ব চলে আসে। কেউ যদি সহজেই হাজার হাজার মানুষের কাছে পৌঁছতে পারে, তারও উচিত সাবলীল, সৃষ্টিশীল ও গঠনমূলক কথায় নিজের ইমেজকে বিকশিত করা।’


২০১৫ সালে ফেসবুকে ফারিয়া ও অপুর বন্ধুত্ব। একপর্যায়ে দুজনকে দুই পরিবারের সবার পছন্দ হয়। ২০১৮ সালে অপুর সঙ্গে ফারিয়ার আংটিবদল হয়। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে হয় বিয়ে। বিয়ের ঠিক ১ বছর ৯ মাসের মাথায় আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদ হয় তাঁদের। 

একাত্তর/ এনএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন