ঢাকা ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

কাঠুরিয়া সেজে অস্ত্রপাচার, চার রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার

কামরুল ইসলাম মিন্টু, কক্সবাজার
প্রকাশ: ০৭ জানুয়ারী ২০২২ ২১:৩৩:০৭ আপডেট: ০৭ জানুয়ারী ২০২২ ২৩:৩৫:০৪
কাঠুরিয়া সেজে অস্ত্রপাচার, চার রোহিঙ্গা গ্রেপ্তার

কাঠুরিয়ার ছদ্মবেশে অস্ত্রপাচারের সময় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির গহীন পাহাড় থেকে অস্ত্রসহ চার রোহিঙ্গাকে আটক করেছে র‌্যাব।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) ভোরে র‌্যাব এই অভিযান চালায়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এই অস্ত্র মিয়ানমার থেকে এনে ক্যাম্পে সরবরাহ করতে চেয়েছিল সন্ত্রাসীরা।

র‌্যাবের কাছে তথ্য ছিল একটি সন্ত্রাসী দল অবস্থান করছে পাহাড়ে। বৃহস্পতিবার রাত তিনটা থেকে শুরু হয় অভিযান। পরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির পাহাড়ে মেলে সেই দলের সন্ধান।

বালুখালী-নাইক্ষ্যংছড়ি সড়ক সংলগ্ন গহীন অরণ্যে অভিযানের সময় দুই ব্যক্তিকে লাকড়ি নিয়ে পাহাড় থেকে নামতে দেখা যায়। সন্দেহ হলে তাদের থামিয়ে চলে তল্লাশি।

একটি লাকড়ির বোঝায় একটি বিদেশি অস্ত্র, একটি স্টেনগান ও একটি দেশী অস্ত্র এবং অন্য লাকড়ির বোঝায় তিনটি দেশিয় অস্ত্র পাওয়া যায়।

এরপর এই দুই জনকে নিয়েই পুরো পাহাড় ঘিরে চালানো হয় অভিযান। এ সময় সন্দেহভাজন আরো দুই জনকে আটক করে র‌্যাব।

তাদের কাছে থাকা লাকড়ির বোঝা থেকে বের করে আনা হয় দুটি বিদেশি এবং ছয়টি দেশীয় অস্ত্র, বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ ও ম্যাগাজিন। 

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, কাঠুরিয়া সেজে অস্ত্রপাচারের উদ্দেশ্যে পাহাড়ে অস্ত্রগুলো মজুদ রাখা হয়। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের উদ্দেশ্যে এসব অস্ত্র-গোলাবারুদ চালান করা হচ্ছিলো।

আরও পড়ুন: ১১ মাস পর তিন ছাত্রলীগ নেতার মাথা থেকে বের হলো ৯ গুলি

র‌্যাবের ধারণা এসব অস্ত্র মিয়ানমার থেকে এনে ক্যাম্পে সরবরাহ করে সন্ত্রাসীরা। পরে বিভিন্ন সন্ত্রাসী গ্রুপের কাছে বিক্রি করা হতো। 

এদিকে, নাইক্ষ্যংছড়ির পাহাড়ি এলাকার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের কারণে অতিষ্ঠ এলাকার বাসিন্দা। তারা জানান, চুরি, ছিনতাই আর ডাকাতিসহ সব অপরাধেই জড়িত রয়েছে সন্ত্রাসীরা।

আটক চারজন মোহাম্মদ নুর, নাজিমুল্লাহ, আমান উল্লাহ ও খাইরুল আমিন, উখিয়ার কুতুপালং ও বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন ব্লকের বাসিন্দা।

একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন