ঢাকা ১৮ মে ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস ও ১১৭ রানে হার টাইগারদের

খালিদ জামিল, একাত্তর
প্রকাশ: ১১ জানুয়ারী ২০২২ ১১:৪৭:১৮ আপডেট: ১১ জানুয়ারী ২০২২ ১৭:২১:১৯
দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস ও ১১৭ রানে হার টাইগারদের

হতাশার গল্প লিখেই নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ থেকে দেশে ফিরছে বাংলাদেশ। দুই ম্যাচ সিরিজের শেষটায় ইনিংস ও ১৭৭ রানে হেরেছে টাইগাররা। 

ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে প্রথম ইনিংসে ১২৬ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনে পড়ে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে লিটন দাশের সেঞ্চুরির পরও তারা গুটিয়ে যায় ২৭৮ রানে। ফলে সিরিজ ১-১ এ ড্র করেছে বাংলাদেশ। 

তবে কিচ্ছু না পাওয়ার এক টেস্ট ম্যাচে অবশেষে মিললো একটা অর্জন। ক্লাসিক ব্যাটার লিটন দাশের পরিসংখ্যানটা ওর ক্যালিবার নিয়ে সবসময় মিথ্যা বলে। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট সেঞ্চুরিটা করে সেই প্রমান আরো একবার করেছে লিটন। 

মাথার ওপর হিমালয় সমান রানের বোঝা। তার ওপর প্রথম ইনিংসে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়েছে ব্যাটিং অর্ডার। ফলোঅনে পড়ে তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সাদমান আর শান্তর উইকেট হারায় বাংলাদেশ। 

এরপর মাটি কামড়ে পড়েছিলেন ওপেনার নাঈম শেখ। নির্বাচকরা যে এই টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্টের ওপর টেস্টেও আস্থা রেখেছেন, এটি তার প্রতিদান দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা। কিন্তু কিউই পেসারদের ৯৮ বল সামলালেও শেষ পর্যন্ত নাঈম ফিরেছেন ২৪ রানে। দলীয় সংগ্রহ তখন ১০৫। 

উইকেটে সেট হয়েছিলেন ক্যাপ্টেন মুমিনুল হকও। পঞ্চাশের বেশি স্ট্রাইকরেটে ব্যাটও করছিলেন। ওয়াগনারের ছোড়া অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে ক্যাচ তোলেন, ধরা পড়েন রস টেইলরের হাতে। 

ক্রিজে এসেই ওয়াগনারের সেটআপে ক্যাচ তুলেছিলেন ইয়াসির রাব্বি। বলটা পড়েছিল গালি অঞ্চলের নো ম্যানস ল্যান্ডে। পরের ওভারে ফিরে এসে সেই একই শর্ট বল সেটআপে রাব্বিকে ধরাশায়ী করেন ওয়াগনার। ডিফেন্ড করতে গিয়ে লাথামের হাতে ক্যাচ দিয়েছেন আগের ইনিংসে মেইডেন টেস্ট ফিফটি পাওয়া এই ব্যাটার। 

সোহানকে সাথে নিয়ে প্রতিরোধ গড়েছিলেন লিটন দাশ। দুজনে মিলে স্কোরবোর্ডে তুলেছেন ১০১ রান। ড্রাইভ খেলতে গিয়ে ওয়াগনারের হাতে ক্যাচ তোলেন সোহান। 

তারপর লিটনের সঙ্গী মেহেদি মিরাজ। স্বীকৃত অলরাউন্ডার বলেই ওর ব্যাটে বাড়তি প্রত্যাশা, কিন্তু ৩০ বল খেলে মিরাজ তিন রানেই ফিরেছেন, জেমিসনের বলে আউটসাইড এজ থেকে ওঠা ক্যাচটা লুফে নেন সেকেন্ড স্লিপে দাঁড়ানো ক্যাপ্টেন লাথাম।

একা আর কতোটা টানবেন, লিটন দাশের মনে বোধহয় উঁকি দিচ্ছিলো সেই হতাশা। এর মাঝেই ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট হান্ড্রেড করেছেন। ১০২ রানে অবশ্য ফিরে গেছেন জেমিসনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে। ৮৯ স্ট্রাইকরেটে ব্যাট করা লিটন হাকিয়েছেন ১৪ বাউন্ডারি আর একটা ওভারবাউন্ডারি। 

টেইলএন্ডাররা তারপর সাধ্যমতো চেষ্টা করে গেছেন সময় কাটানোর। দ্বিতীয় ইনিংসে টাইগাররা থেমেছে ২৭৮ রানে। খেই হারানো বাংলাদেশের লক্ষ্যহীন ব্যাটিং শেষে টাইগাররা বাড়ি ফিরছে প্রথম টেস্টে অসাধারণ জয় আর দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস আর ১১৭ রানের পরাজয়ের অম্লমধুর স্মৃতি নিয়ে। 


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন