ঢাকা ১৭ আগষ্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

ঢাবিতে আবারও সশরীরে ক্লাস বন্ধ ঘোষণা, খোলা থাকবে হল

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ২১ জানুয়ারী ২০২২ ১৩:৫৮:১৩
ঢাবিতে আবারও সশরীরে ক্লাস বন্ধ ঘোষণা, খোলা থাকবে হল

করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতি মাথায় রেখে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আবারও সশরীরে ক্লাস বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগের মতোই এবারও অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষা চলমান থাকবে।

তবে সশরীরে শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ হলেও খোলা থাকবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো। স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলে অবস্থান করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল এই তথ্য জানিয়েছেন। দ্রুত সময়ের মধ্যেই এ বিষয়ে নির্দেশনা জারি হবে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভবনের কার্যক্রম সীমিত পরিসরে চলবে। হলগুলোর সার্বিক করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, ঢাবির করোনা পরীক্ষা ল্যাবের দায়িত্বপ্রাপ্ত অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, গত ১০ দিনে ঢাবির ৪৪ শিক্ষার্থী ও ৩০ শিক্ষকের করোনা পজিটিভ এসেছে।

এর আগে, একইদিন করোনা প্রতিরোধে স্কুল বন্ধের ঘোষণা দেয় সরকার। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল-কলেজ ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে পাঁচ নির্দেশনা জারি

একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নিজ নিজ ক্ষেত্রে অনুরূপ ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানায় মন্ত্রিপরিষদ। তবে বিশ্ববিদ্যালয় যেহেতু নিজেদের আইনে চলে তাই এ বিষয়ে তাদের সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে।

এদিকে নির্দেশনা জারির পর পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত জাতীয় বিশ্ববিদ্যায়ের সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

পরিস্থিতি সাপেক্ষে পরবর্তী সময়ে পরীক্ষার সময়সূচি জানানো হবে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

ইতিমধ্যেই বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সশরীর ক্লাস বন্ধ করে অনলাইন ক্লাসে ফিরে গেছে।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে দুই সপ্তাহের জন্য সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু পরিস্থিতি খারাপ হলে প্রায় ১৮ মাস বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

করোনা পরিস্থিতির কিছুটা ভালোর দিকে গেলে গত ১২ সেপ্টেম্বর সীমিত আকারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়। কিন্তু সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আবারও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত এলো।


একাত্তর/টিএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৫ দিন আগে