ঢাকা ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

কুষ্টিয়ায় শেষ হলো ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা

শাহীন আলী, কুষ্টিয়া
প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০২১ ১৯:০৫:৪০
কুষ্টিয়ায় শেষ হলো ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা

মহামারির ধাক্কা কাটিয়ে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার কবুরহাটে আবারো অনুষ্ঠিত হলো গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা। এই আসরকে ঘিরে প্রতিদিন উৎসবে মেতেছিল বহু দর্শনার্থী।

জমিদারি প্রথা বিলুপ্তির সঙ্গে ফুরিয়ে যায় লাঠিয়ালদের কদর। তবে তাদের বংশধররা এখনও বাঁচিয়ে রেখেছেন লাঠিখেলা।

সেই ঐতিহ্যকে ধরেই কুষ্টিয়ায় প্রতিবছরই অনুষ্ঠিত হয় লাঠিখেলা। করোনার থাবায় গেলো বছর আসর না হলেও, এবার সেই লাঠিখেলা ফিরেছে স্ব-মহিমায়।

প্রত্যেক খেলোয়াড় বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে নেচে লাঠি নিয়ে জড়ো হন কবুরহাট মাঠে। এরপর নিজেকে আত্মরক্ষার নানা কলা-কৌশলের মধ্য দিয়ে শুরু হয় লাঠিখেলা।

এর পর একে একে দেখান, সড়কি খেলা, ফড়ে খেলা, ডাকাত খেলা, বানুটি খেলা, গ্রুপ যুদ্ধ, নরি বারী খেলা এবং দা খেলা। শক্ত হাতে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে দেখাতে থাকেন ভেলকি।

লাঠিয়ালরা জানালেন, শুধু মানুষকে আনন্দ দিতে নয়, খেলার মাধ্যমে নিজেদের মন আর শরীর ভালো রাখতেই তাদের এই অনুশীলন।

আর ঐতিহ্যবাহী এই খেলা দেখতে আগ্রহের কমতি নেই গ্রামবাসীর। কেউ খেলা দেখছে মাটিতে বসে, কেউবা গাছে চড়ে। লাঠিয়ালদের অপূর্ব কৌশল দেখে মুগ্ধ দর্শকরা।

আরও পড়ুন: মহা অষ্টমীতে ঢাকার বাইরে কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত

তারা জানান, প্রতি বছর এমন আয়োজন তাদের ভিন্ন মাত্রার বিনোদন দেয়। অবসরে দু'দণ্ড শান্তি খুঁজে নিতেই তারা ছুটে আসেন লাঠিখেলা দেখতে।

দর্শকরা বলছেন, নিয়মিত আমরা খেলা দেখতে চাই। আমরা প্রতিবছর এমন আয়োজন দেখতে চাই। প্রজন্মের পর প্রজন্ম এই খেলা যেন টিকে থাকে। আর, আয়োজকরা জানান, খেলাটি হারিয়ে যাচ্ছে। তাই ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখতে এমন আয়োজন। তবে শত বছরের পুরনো এই খেলা ধরে রাখতে প্রশাসনের উদ্যোগই চাইলেন তারা।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন