ঢাকা ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

পুরনো মজুদ শেষ হলেই বাড়বে ভোজ্য তেলের দাম

রাজীব বড়ুয়া, চট্টগ্রাম
প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০২১ ১৪:৪৫:৩৬ আপডেট: ২২ অক্টোবর ২০২১ ১৫:০২:৫২
পুরনো মজুদ শেষ হলেই বাড়বে ভোজ্য তেলের দাম

সারাদেশের খুচরা বাজারে ভোজ্য তেলের দাম বাড়লেও, চট্টগ্রামের পাইকারি বাজারে তেল বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই। পাইকাররা জানান, পুরোনো দামে কেনা তেল বিক্রি শেষ না হওয়া পর্যন্ত তারা আগের দামেই তেল বিক্রি করবেন। 

যদিও আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ায় তাদেরকেও তেলের দাম বাড়াতে হয়েছে, কিন্তু সেই বাড়তি দাম কার্যকরের সময় এখনো হয়নি।

গত সপ্তাহে দেশের সব থেকে বড় ভোগ্য পণ্যের পাইকারি বাজার চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে প্রতি মণ সয়াবিন বিক্রি হয়েছে ৫,৩৫০ টাকায়। আর পাম অয়েল ৫,০০০ টাকা। এ সপ্তাহে ১০০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৫,৪৫০ ও ৫,১০০ টাকায়।

প্রতি লিটারে সাত টাকা দাম বৃদ্ধির ঘোষণা হলেও বাজারগুলোতে আগের দামে কেনা তেল মজুদ থাকায় নগরীর পাইকারি বাজারে এখনো পুরনো দামেই বিক্রি হচ্ছে তেল।

আর ব্যবস্যয়ী নেতারা বলছেন আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত সয়াবিন ও অপরিশোধিত পাম তেলের দাম বাড়ায় দেশের বাজারে এসে পড়ছে তার প্রভাব। তবে আমদানী ট্যাক্স-ভ্যাট কমিয়ে দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে সরকার।

আরও পড়ুন: সদর্পে ফেরার গল্প তৈরি করলো ‘বড় সর্দার বাড়ি’

আগের দামে কেনা তেল বিক্রি শেষ হলেই নতুন দামে বিক্রি শুরু হবে বলে জানায় খুচরা ব্যবসায়ীরা। এদিকে, দফায় দফায় তেলে দাম বৃদ্ধিতে দিশেহারা ক্রেতারা।

তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকারের মনিটরিংয়ের পাশাপাশি ভর্তুকি দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ভোক্তা অধিকার সংগঠন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, দেশে বছরে ২০ লাখ টন ভোজ্য তেলের চাহিদা রয়েছে। এর মধ্যে দেশে উৎপাদিত তেলবীজ থেকে পাওয়া যায় সোয়া দুই লাখ টন তেল। বাকিটা আমদানি করতে হয় মালয়েশিয়া, ব্রাজিল,আর্জেন্টিনা ও প্যারাগুয়ে থেকে।


একাত্তর/টিএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন