ঢাকা ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

এখনো আতঙ্কে আছেন নোয়াখালীর সনাতন ধর্মের মানুষরা

ইশতিয়াক ইমন, নোয়াখালী থেকে
প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০২১ ১৬:৫০:২৫ আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১ ২১:১৬:২৩
এখনো আতঙ্কে আছেন নোয়াখালীর সনাতন ধর্মের মানুষরা

নোয়াখালীর সনাতন ধর্মের মানুষের আতঙ্ক কাটেনি এখনও। দুর্গাপূজার নবমী ও দশমীর দিন মন্দিরে চালানো হামলায় লুট হয়েছে তাদের কয়েক কোটি টাকার সম্পদ।

দুইশ’ বছরের পুরনো শ্রী রাধা মাধব যিউর মন্দির থেকেই লুট হয়েছে দুই কোটিরও বেশি টাকার সম্পদ। হামলা, আগুন ও লুটের প্রতিবাদ ও বিচার চেয়ে অনশন ও বিক্ষোভ করেছে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

চৌমুহনী পৌরসভাতেই শ্রী রাধা মাধব যিউর মন্দিরের অবস্থান। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময়ও দুইশ’ বছরের পুরনো এই কেন্দ্রীয় মন্দিরে কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি।

কিন্তু ১৫ অক্টোবর শুক্রবার জুমার নামাজের পর সেখানে মিছিল নিয়ে হামলা চালায় কয়েকশ’ মানুষ। মন্দিরে ব্যাপক ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে।

হামলার সময় মন্দিরের মুল গেটে দায়িত্বরত ছিলেন একজন নির্বাহী হাকিমসহ বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা। কিন্তু তারা শত শত মানুষকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেননি তারা।

টানা দুই ঘণ্টা ধরে চলা তাণ্ডবে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় মন্দিরটি। মন্দিরের চারটি সিন্দুক ভেঙে লুট করা হয় প্রায় ত্রিশ লাখ টাকা ও দেড় কোটি টাকার স্বর্ণ রুপা। লুট হয় চালের বস্তাও।

নোয়াখালীতে এমন ১১টি মন্দির ও মণ্ডপে হামলা এবং দুই জনকে হত্যার বিচার চেয়ে শনিবার ভোর থেকে অনশন ও বিক্ষোভ মিছিল করে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

আরও পড়ুন: এবার দেশে মুক্তি পাচ্ছে নোনা জলের কাব্য

অনশনে হিন্দু ধর্মীয় নেতারা বলেন, তারা এখনও নিরাপত্তাহীনতায় আছেন। তাদের মতে অতীতের কোন সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার না হওয়াতেই এমন ঘটনা ঘটছে।

প্রশাসনের ব্যর্থতা ও অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক শক্তি মাঠে না থাকাকেও কারণ বলে মনে করেন তারা। অনশন শেষে বিক্ষোভ মিছিল করে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ।

একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন