ঢাকা ২৯ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

দেশে চালক ও রাইডাররা সব সুবিধা নিতে জানেন না: উবার শীর্ষকর্তা

জুলিয়া আলম, একাত্তর
প্রকাশ: ২৭ অক্টোবর ২০২১ ১৭:৫২:৩২ আপডেট: ২৭ অক্টোবর ২০২১ ২১:৫৬:৫৩
দেশে চালক ও রাইডাররা সব সুবিধা নিতে জানেন না: উবার শীর্ষকর্তা

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও করোনা মহামারিতে থমকে গিয়েছিলো নগরজীবন। নাগরিক মধ্যবিত্তের প্রতিদিনের জীবন অনুষঙ্গ অনলাইন ট্যাক্সি সেবা উবারও বন্ধ থেকেছে অনেকদিন। এখন আবার চালু হলেও ভাড়া অতিরিক্ত বেড়ে গিয়ে ভোগান্তি বেড়েছে গ্রাহকের। ভাড়া বৃদ্ধিসহ গ্রাহকের অনেক অভিযোগের জবাব নিতে  উবার বাংলাদেশ এবং পূর্ব ভারতের শীর্ষ কর্মকর্তা আলী আরমানুর রহমান এর মুখোমুখি হয় একাত্তর।

দীর্ঘ আলাপে তিনি স্বীকার করেন গ্রাহকের অনেক অভিযোগ। তুলে ধরেন বাংলাদেশের ড্রাইভার ও উবার ব্যবহারকারীদের  নানা সীমাবদ্ধতা। এদেশে পাঁচ বছর পূর্তি উপলক্ষে উবারের নতুন সেবা ও ব্যবসা সম্প্রসারণের পরিকল্পনাও একাত্তরকে জানান তিনি।  

ভাড়া বৃদ্ধির কারণ নিয়ে  আরমানুর বলেন, করোনার কারণে অনেক চালক গ্রামে চলে গেছে। কেউ কেউ গাড়ি বিক্রি করে দিয়েছেন নিজের পরিবার চালানোর জন্য। যারা বাইক চালাতেন তারাও অনেকেই ছেড়ে দিয়েছেন; এসব নানা কারণে গাড়ির সংখ্যা কমে গেছে। এই মার্কেট ডায়ানামিক্সই ভাড়া বৃদ্ধির কারণ মানে শহরে চাহিদার তুলনায় গাড়ির সরবরাহ কমে যাওয়ায় গ্রাহকদের বেশি ভাড়া গুনতে হচ্ছে; এটি হচ্ছে বিশেষ করে পিক আওয়ারে।


শুধু ভাড়াই নয়, বুকিং ক্যানসেলেশন এবং ব্যবহারকারীদেরই এর মাশুল দেওয়া, তাদের ইচ্ছামতো গন্তব্যে না যাওয়া কিংবা অর্ধপথে নামিয়ে দেওয়াসহ নানা অভিযোগ নিয়েও প্রশ্ন ছিলো একাত্তরের।   

এসব নিয়ে বাংলাদেশে উবার এর প্রধান নির্বাহী  বলেন, যেহেতু উবারের সার্ভিস অ্যাপ নির্ভর তাই ট্রিপ ক্যানসেলেশন ফি এর ক্ষেত্রে অনেক সময় অ্যাপ সঠিক টা নির্ধারণ করতে পারে না। তাই গ্রাহককে এর মাশুল দিতে হয়, যদিও সে হার খুবই কম। আমরা রাইডার চেক নামে নতুন টেকনোলজি চালু করেছি। যেখানে চালকরা বেপরোয়া বা অপ্রত্যাশিত কোনো আচরণ করলে তখনই আমরা সরাসরি রাইডারের সাথে যোগাযোগ করবো।

অনেক সময় ইচ্ছে করে বেশি পথ ঘুরিয়ে ভাড়া বাড়িয়ে দিচ্ছেন চালকরা, এমন প্রশ্নে উবার কর্মকর্তা বলেন,  হ্যাঁ এটা ঠিক। যারা লাইভ ম্যাপ সার্ভিস দেয় তার সব সময় আপডেট করে না ফলে উবারের  ম্যাপও সবসময় আপডেট থাকে না। তাই চালকরা অনেক সময় সহজ হবে ভেবে ম্যাপ অনুসরণ না করে নিজের ইচ্ছামত রাস্তা নির্বাচন করে গ্রাহকের গন্তব্যে যেতে চায়। এ ব্যাপারে সমসময় আমরা চালকদের কড়া নির্দেশনা দেই, যেন তারা সবসময় ম্যাপ অনুসরণ করে।

বাংলাদেশেও উবার সেবার ধরন ইউরোপ আমেরিকার বিভিন্ন উন্নত দেশের মতো দাবি করেন আলী আরমান বলেন, এদেশে চালক এবং ব্যবহারকারীরা সব সুবিধা নিতে পারেন না। 

তিনি বলেন, ডিজিটাল পেমেন্ট থেকে শুরু করে টেকনোলজি ব্যবহারের দিক দিয়ে অন্য দেশের তুলনায় আমরা এখনও অনেকটা পিছিয়ে। এখানে চালক, গ্রাহকরা পুরোপুরি এখনও অভ্যস্ত হতে পারেনি। তাই উবার অ্যাপে থাকা সত্ত্বেও ব্যবহারকারীরা যেকোনো সমস্যায় অভিযোগ করাসহ অনেক সুবিধা নিতে পারেন না।

আরও পড়ুন: হু হু করে বাড়ছে টাকার বিপরীতে ডলারের দাম

মহামারির প্রভাবে গত বছর বিশ্বজুড়ে প্রায় সাত বিলিয়ন ডলার লোকসানের পরও ব্যবসায় বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে উবার। বাংলাদেশে তাদের পাঁচ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এ উপলক্ষে আগামীতে এদেশে উবার এর নতুন সেবার পরিকল্পনাগুলো আংশিক জানান তিনি। 

উবার কর্মকর্তা বলেন, করোনা কমে যাওয়ার পর আমরা বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়িয়েছি। আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা আছে। দেশের আরও বেশ কিছু সিটি উবারের আওতায় আনতে কাজ করছি। তবে সবার আগে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি উবারকে আগের অবস্থায় ফেরত নেওয়া, যেমনটা ছিল করোনার আগে।

একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন