ঢাকা ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

টানা চার সপ্তাহ মন্দার পর ঘুরে দাঁড়িয়েছে ঢাকার পুঁজিবাজার

রিয়াজ সেজান, একাত্তর
প্রকাশ: ১৩ নভেম্বর ২০২১ ১৬:৫৮:২২
টানা চার সপ্তাহ মন্দার পর ঘুরে দাঁড়িয়েছে ঢাকার পুঁজিবাজার

টানা চার সপ্তাহ মন্দার পর গেলো সপ্তাহ কিছুটা ঘুরে দাঁড়িয়েছে ঢাকার পুঁজিবাজার। বাজার মূলধন বেড়েছে প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা। যদিও সপ্তাহজুড়ে লেনদেন কমেছে ৮ দশমিক দুই সাত শতাংশ। সেই সাথে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দরে পতন হয়েছে। ঢাকার মতো ইতিবাচক ধারায় সপ্তাহ কেটেছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও। 

টানা চার সপ্তাহের পতনে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছিল ৩০ হাজার কোটি টাকা। গেল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৫৬ হাজার ৪৭০ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে ৪ হাজার ৯১২ কোটি টাকা। এ হিসেবে চার সপ্তাহ পর ডিএসই প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা মূলধন ফিরে পেল। অর্থাৎ বাজারে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করা অর্থের পরিমাণ বেড়ে গেছে।

বাজার মূলধন বাড়ালেও গেল সপ্তাহে ডিএসইতে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ১৪১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২০৮টির। আর ৩০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এরপরও গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৮৯ দশমিক ২১ পয়েন্ট। আগের চার সপ্তাহের সূচকটি কমে ৪৩৪ পয়েন্ট। গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১৭৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ১ হাজার ২৮৬ কোটি ৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ১০৬ কোটি ৩৯ লাখ টাকা বা ৮ দশমিক ২৭ শতাংশ।

গেল সপ্তাহে ডিএসইতে টাকার অংকে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকোর শেয়ার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯০০ কোটি ৭৪ লাখ ৩৬ হাজার টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৫ দশমিক ২৭ শতাংশ। 

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ওরিয়ন ফার্মা শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৭১ কোটি ৮২ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। এছাড়া লেনদেনের ভিত্তিতে তৃতীয় স্থানে রয়েছে এনআরবিসি ব্যাংক।

চার সপ্তাহ পর বাজারের ইতিবাচক পরিবর্তনকে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরার লক্ষণ বলছেন বাজার বিশ্লেষকরা। অন্যদিকে অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে সার্বিক সূচক বেড়েছে ১.৪৮ শতাংশ। সপ্তাহ শেষে লেনদেন হয়েছে ১৬৫কোটি ৮০ লাখ টাকা।

একাত্তর/ এনএ


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন