ঢাকা ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ৯ মাঘ ১৪২৮

বংশী নদী রক্ষায় পরিবেশের ডিজির বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২১ ১৮:৪০:৪২
বংশী নদী রক্ষায় পরিবেশের ডিজির বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

সাভার ও ধামরাই উপজেলার মাঝ দিয়ে প্রবাহিত বংশী নদী দখল ও দূষণ বন্ধ করে দায়ীদের বিষয়ে প্রতিবেদন না দেয়ায় পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি)সহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

রোববার (২১ নভেম্বর) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন না করায় কেন তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হবে না, তা জানতে চেয়ে এ রুল জারি করা হয়েছে। 

বংশী নদী দখল ও দূষণ বন্ধ চেয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের ডিজিসহ ১৪ জনকে বিবাদী করে এর আগে হাইকোর্টে রিট পিটিশন করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মো. বাকির হোসেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট বাকির হোসাইন।

২০১৯ সালের ২৮ অক্টোবর একটি জাতীয় দৈনিকে ‘দখল-দূষণে শেষ বংশী নদী’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘৬৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান গিলে খাচ্ছে রাজধানীর উপকণ্ঠের সাভারের বংশী নদী। এ নদীর বিরাট এলাকা প্রভাবশালীদের দখলে থাকলেও উদ্ধারের উদ্যোগ নেই। নদীর মাটি কেটে বিক্রি করা হচ্ছে দেদারছে। এসব কারণে ভালো নেই সাভার উপজেলার ৪০ থেকে ৪২ লাখ বাসিন্দা।’ 

আরও পড়ুন: সাঈদীর পর এবার যুক্তরাজ্যে নিষিদ্ধ হলেন আজহারীও

প্রতিবেদনটি যুক্ত করে জনস্বার্থে হাইকোর্টে রিট করেন আইনজীবী মো. বাকির হোসেন।

রিটের প্রেক্ষিতে ২০১৯ সালের ২ ডিসেম্বর রুলসহ আদেশ দেন হাইকোর্ট। আদেশে বংশী নদীর দূষণ বন্ধ এবং দূষণ ও দখলদারদের বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়। পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো), রাজউক, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি), ঢাকার জেলা প্রশাসক (ডিসি), সাভারের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), সাভারের ভূমি কর্মকর্তা, ঢাকা জেলার এসপি ও সাভার থানার ওসিকে এই প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেন আদালত।

আদালতের আদেশ অনুযায়ী প্রতিবেদন না দেয়ায় বিষয়টি আজ আদালতের নজরে আনেন রিট আবেদনকারী। খবর বাসস। 


একাত্তর/আরএইচ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন