ঢাকা ০৯ আগষ্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯

সেনবাগে মাদ্রাসাছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নোয়াখালী
প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ১৪:১৫:২৭
সেনবাগে মাদ্রাসাছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের দীন নারায়ণপুর গ্রামের জহিরের ডেকোরেটর দোকানে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় একই দিন রাত ১০টার দিকে ভুক্তভোগী ছাত্রীর মা বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার পরদিন শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) সকালে ভুক্তভোগী ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। 

মামলার আসামিরা হলেন বীজবাগ ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের দীন নারায়ণপুর গ্রামের মজু কারিগর বাড়ির মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে জহির উদ্দিন (৪৫) ও তার সহযোগী একই এলাকার মৃত আলী সারেংয়ের ছেলে হাবীব উল্যাহ (৪৩)।  

আরও পড়ুন: মেহেরপুরে মাদক, বন্দুকের কার্তুজসহ দুই ভাই গ্রেপ্তার

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ধর্ষক জহির পেশায় একজন ডেকোরেটর দোকানদার এবং অপর আসামি হাবীব ওই জায়গার মালিক। বিভিন্ন সময় প্রতিবেশী ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে টাকাপয়সার প্রলোভন দেখাতো ধর্ষক। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ছাত্রী মাদরাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ডেকোরেটর দোকানের সামনে পৌঁছলে জহির তার মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে শাটার বন্ধ করে হাবীবের সহায়তায় তাকে ধর্ষণ করে। 

এসময় স্থানীয় কিছু বাসিন্দা বিষয়টি টের পেয়ে দোকানে হানা দিলে সে পালিয়ে যায়। পরে ভুক্তভোগী তার মা এবং স্থানীয়দের বিষয়টি জানায়।

ওসি আরও জানান, আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ৭ দিন আগে