ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

পরবর্তী মহামারি আরও প্রাণঘাতী হতে পারে: সারাহ গিলবার্ট

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০:১১:৫৩ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০:১৪:২৯
পরবর্তী মহামারি আরও প্রাণঘাতী হতে পারে: সারাহ গিলবার্ট

ভবিষ্যতের মহামারি করোনার চেয়েও বেশি প্রাণঘাতী হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন অধ্যাপক সারাহ গিলবার্ট। যিনি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার উদ্ভাবকদের একজন। 

সারাহ বলছেন, এ কারণে করোনা মহামারি থেকে পাওয়া শিক্ষা অবহেলা করা যাবে না। একই সঙ্গে পরবর্তী ভাইরাসজনিত মহামারির বিষয়ে প্রস্তুত থাকতে হবে বিশ্বকে। 

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, রিচার্ড ডিম্বেলেবি লেকচারে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাকসিনোলোজির অধ্যাপক সারাহ গিলবার্ট পরবর্তী ভাইরাসের জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান।

এ সময় সারাহ বলেন, সত্যটা হলো পরবর্তী মহামারি আরও খারাপ হতে পারে। এটা আরও বেশি সংক্রামক কিংবা প্রাণঘাতী কিংবা উভয়ই হতে পারে। আমাদের জীবন ও জীবিকাকে হুমকির মুখে ফেলা ভাইরাস এটাই সর্বশেষ নয়।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান মহামারি থেকে আমরা যে অগ্রগতি অর্জন করেছি, যে জ্ঞান আমরা লাভ করেছি তা অবশ্যই হারাতে দেওয়া যাবে না।

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন সম্পর্কে তিনি বলেন, স্পাইক প্রোটিনে যে পরিবর্তন ঘটছে তার কারণে এই ভাইরাস বেশি মাত্রায় সংক্রামক। এর অর্থ হলো এই ভাইরাসে নতুন করে পরিবর্তনের অর্থই হচ্ছে টিকার ফলে দেহে যে এন্টিবডি তৈরি হয়েছে অথবা অন্য ভ্যারিয়েন্ট এর ফলে যে এন্টিবডি তৈরি হয়েছে- তা কম মাত্রায় ওমিক্রনের কাছে প্রতিরোধক্ষমতা সৃষ্টি করতে পারবে। 

তার মতে, যতক্ষণ পর্যন্ত এই ভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত জানা না যাচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত সর্তকতা অবলম্বন করা উচিত। ওমিক্রন নিয়ে এমন পদক্ষেপ নেওয়া উচিত যার ফলে এই ধরনের বিস্তার কমে যায়।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও দৃঢ় করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসেব অনুযায়ী করোনা মহামারিতে এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ৫২ লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। 

আর এরইমধ্যে বিশ্বের ৩৮ দেশে শনাক্ত হয়েছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন। তবে এখন পর্যন্ত এই ধরনে আক্রান্ত কারও মৃত্যু হয়নি বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ডব্লিউএইচও এসব তথ্য জানিয়েছে।


একাত্তর/আরবিএস

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন