ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

যুক্তরাষ্ট্রের ১৬ অঙ্গরাজ্যে ওমিক্রন শনাক্ত

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০:৫০:৫৫ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২৩:০৬:৪২
যুক্তরাষ্ট্রের ১৬ অঙ্গরাজ্যে ওমিক্রন শনাক্ত

যুক্তরাষ্ট্রের এক-তৃতীয়াংশ অঙ্গরাজ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাসের ওমিক্রন ধরন। কিন্তু শনাক্তের অধিকাংশ এখনও ডেলটা ধরন, জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। 

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা আরও বলছেন, করোনা ভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়্যান্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। তবে এর প্রাথমিক লক্ষণ দেখে মনে হচ্ছে, এটি ডেলটা ভ্যারিয়্যান্টের চেয়ে কম ভয়াবহ হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রধান স্বাস্থ্য উপদেষ্টা ড. অ্যান্থনি ফাউসি সিএনএন’র ‘স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন’ অনুষ্ঠানে বলেছেন, 'এখন পর্যন্ত মনে হচ্ছে না এর ব্যাপক ভয়াবহতা রয়েছে। কিন্তু, এটা যে অসুস্থতার তীব্রতার দিক দিয়ে ডেলটার চেয়ে কম, সেরকম নিশ্চিত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে আমাদের আরও সতর্ক থাকতে হবে।'

ওমিক্রনের আবির্ভাবের পর দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকার যেসব দেশ থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল তা 'যৌক্তিক সময় পর' তুলে নেওয়া হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে শুরু থেকেই দক্ষিণ আফ্রিকান সরকার অভিযোগ করে আসছে যে, নতুন এই ধরন চিহ্নিত করে দ্রুততার সাথে আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের জানিয়ে 'তালির পরিবর্তে গালি'ই জুটছে তাদের। 

আরও পড়ুন: সু চির শাস্তি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: জাতিসংঘ

তাই এই অনুষ্ঠানে ফাউসি দক্ষিণ আফ্রিকার স্বচ্ছতার প্রশংসা করে বলেন, এমন এক সময়ে এই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি হলো যখন 'আমরা পুরোপুরি একটা অন্ধকারে' এবং ধরনটি বোঝার জন্য আরও গবেষণার দরকার ছিলো। 

ক্যালিফোর্নিয়া, কলোরাডো, কানেকটিকাট, হাওয়াই, লুইজিয়ানা, মেরিল্যান্ড, ম্যাসাচুসেটস, মিনেসোটা, মিসৌরি, নেব্রাস্কা, নিউজার্সি, নিউইয়র্ক, পেনসিলভ্যানিয়া, উটাহ, ওয়াশিংটন এবং উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যে ইতোমধ্যে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। 

বেশ কিছু ক্ষেত্রে আক্রান্তরা পূর্ণ ডোজ টিকা নেওয়া ছিলেন। যদিও, বুস্টার ডোজ ছিল না অধিকাংশেরই। 

লুইজিয়ানার স্বাস্থ্য বিভাগ রোববার জানায়, সেখানকার একজন ওমিক্রন আক্রান্ত ব্যক্তি দেশের ভেতরে ভ্রমণের পর ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন। 

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক গড়ে প্রায় এক লাখ ১৯ হাজার করোনা শনাক্ত এবং এক হাজার তিনশ' মানুষ মারা যাচ্ছে। 


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন