ঢাকা ২৯ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

মিস ইউনিভার্সের খেতাব জিতলেন ভারতের হারনাজ

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ১৩ ডিসেম্বর ২০২১ ১৫:০৯:৫৮ আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০২১ ১৯:৪০:১৩
মিস ইউনিভার্সের খেতাব জিতলেন ভারতের হারনাজ

বিশ্ব সেরা সুন্দরী নারীর খেতাব জয়ে ভারতীয়দের দাপট এতোটুকুও কমেনি। গোটা বিশ্বের প্রায় ৮০ জন তাবড় সুন্দরীকে হারিয়ে মিস ইউনিভার্সের খেতাব জয় করেছেন ভারতের মেয়ে হারনাজ সান্ধু। প্রায় ২১ বছর পর আবারও এই জিতলেন কোনো ভারতীয়।

এবার ইসরাইলে বসেছিলো মিস ইউনিভার্সের আসর। সেখানের ইলাত ইউনিভার্স ডোমে বর্ণাঢ্য আয়োজনে হারনাজ সান্ধুকে মিস ইউনিভার্স-২০২১ ঘোষণা করা হয়। ২১ বছর বয়সী হারনাজ মিস প্যারাগুয়ে ও মিস সাউথ আফ্রিকাকে পেছনে ফেলে এই মুকুট জেতেন।

৭৯ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে খেতাব জয় করা হারনাজ সান্ধুকে মিস ইউনিভার্সের মুকুট মাথায় পরিয়ে দেন মেক্সিকোর আন্দ্রেয়া মেজা। ২০০০ সালে লারা দত্ত এই খেতাব জেতার ২১ বছর পরে আবার মিস ইউনিভার্সের শিরোপা ভারতে ফিরিয়ে আনলেন হারনাজ সান্ধু।

চণ্ডীগড়ের মেয়ে হারনাজ। সেখানেই স্কুল ও কলেজের পড়াশোনা। সবে কিছু দিন হয়েছে ফ্যাশন দুনিয়ায় পা রেখেছেন ২১ বছরের তন্বী ৷ আর অল্প দিনেই পকেটে পুরে নিয়েছেন একের পর সুন্দরী প্রতিযোগিতার পুরস্কার।


প্রথম বড় পরিসরে নজর কাড়েন ২০১৭ সালে। জিতে নেন টাইমস ফ্রেশ ফেস মিস চণ্ডীগড়ের খেতাব। পরের বছর জিতে নেন মিস ম্যাক্স ইমার্জিং স্টার ইন্ডিয়া। আর, ২০১৯ সালে ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া পঞ্জাব-এর শিরোপাও যায় তাঁর মাথায়।

তবে তাঁকে হোঁচট খেতে হয় ফেমিনা মিস ইন্ডিয়ার ফাইনালে। ১১ জনের পেছনে অবস্থান হয় পাঞ্জাবের সুন্দরীর। তবে তাতে দমে যাননি তিনি। মডেলিংয়ের পাশাপাশি অভিনয় জগতেও পা রাখেন তিনি। একই সঙ্গে চলে পড়াশোনাও।

No description available.

দুই বছর পর, এবারের ফেমিনা মিস ইন্ডিয়ায় অংশ নিয়ে বাজিমাত করেন হারনাজ। মিস ইন্ডিয়া ইউনিভার্সের খেতাব জিতে নিয়ে তিনি শামিল হন ৭০তম মিস ইউনিভার্সের আসরে। একে একে অন্যান্য দেশের প্রতিযোগীদের পেছনে ফেলে জয় করেন সেরার মুকুটু।

মিস ইউনিভার্স হারনাজ তার মাকে জীবনের সবচেয়ে বড় অনুপ্ররেণা হিসাবে দেখে আসছেন। এছাড়াও ভারতীয় অভিনেত্রী ও সাবেক মিস ওয়ার্ল্ড প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এবং অভিনেতা শাহরুখ খান তার আরো দুই আদর্শ। হারনাজের মা পেশায় এক চিকিৎসক। 

No description available.

মিস ইউনিভার্সের মুকুট জয়ের প্রতিক্রিয়ায় হারনাজ বলেন, বিশ্বাস অদৃশ্য। কিন্তু অনুভব করা যায়। আজ আমার ভেতরে সেই অনুভূতি হচ্ছে। তাই আমি বিশ্বাস করি আমার পরিবার এবং আপনাদের আশীর্বাদ আমাকে এই অর্জন এনে দিয়েছে। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

হারনাজ সান্ধু একজন প্রকৃতিপ্রেমী। বিশ্বের জলবায়ু পরিবর্তন এবং প্রকৃতি সংরক্ষণ নিয়ে তার মন্তব্য মিস ইউনিভার্সের প্যানেল লিস্টকে মুগ্ধ করেছিল। গ্লোবাল ওয়ার্মিং এবং জলবায়ু পরিবর্তন নিয়েও কাজ করতে চান তিনি।

No description available.



একাত্তর/ এনএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন