ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

'মাতৃত্ব' কি শুধুই নারীদের বিষয়? প্রশ্ন এক পুরুষের

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২২ ডিসেম্বর ২০২১ ২২:৩৮:৪০ আপডেট: ২৭ ডিসেম্বর ২০২১ ১৫:৪৫:২৫
'মাতৃত্ব' কি শুধুই নারীদের বিষয়? প্রশ্ন এক পুরুষের

গর্ভে সন্তান থাকাকালীন অবস্থায় একজন পুরুষকে 'মা' ডেকেছেন এক নার্স, আর তাতেই চটেছেন ওই পুরুষ। এ নিয়ে নার্সের বিরুদ্ধে অভিযোগও করেছেন বেনেট কাস্পার উইলিয়ামস নামের ওই ব্যক্তি। 'মাতৃত্ব' কি শুধু নারীর একার বিষয়? -মার্কিন সমাজের সামনে এমন প্রশ্নও ছুঁড়ে দিয়েছেন তিনি।

ঘটনার শুরু যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে। ৩৭ বছর বয়সী বেনেট কাস্পার উইলিয়ামস প্রায় দশ বছর আগে ২০১১ সালে রুপান্তরকামী পুরুষ হওয়ার জন্য যাত্রা শুরু করেন। কিন্তু তিনি তখনও নিজের যৌনাঙ্গ পরিবর্তনের পথে পা রাখেননি। নিজেকে বোঝার জন্য সময় নিচ্ছিলেন বেনেট। 

এমন সময় রুপান্তর প্রক্রিয়া শুরুর ঠিক ছয় বছর পর ২০১৭ সালে মালিক নামের এক পুরুষকে খুঁজে পান বেনেট। নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া ভালো হওয়ায় ২০১৯ সালে বিয়ে করেন তারা। 

বিয়ের পর বেনেট-মালিক দম্পতি সন্তান নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এবং সন্তানের জন্যই বেনেট রুপান্তর প্রক্রিয়ার অংশ টেস্টোস্টেরন হরমোন থেরাপি বন্ধ করে দেন।

 বেনেট-মালিক দম্পতি ও তাদের শিশু সন্তান (ডেইলি মেইল)

এরপর সন্তান ধারণের জন্য বেনেট তার শরীরে একাধিক অস্ত্রোপচার করেন। যাতে তার গর্ভে সন্তান ধারণ করতে পারেন। জটিল প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যান তিনি। যদিও তার যৌনাঙ্গ আগের অবস্থাতেই থাকে। অবশেষে চিকিৎসক ও আধুনিক বিজ্ঞানের সাহায্যে তিনি গর্ভধারণ করেন।  

অবশেষে ২০২০ সালে বেনেটের গর্ভ থেকে হুডসন নামের এক শিশুর জন্ম হয়। বেনেট-মালিক দম্পতি তাদের সন্তানকে আনন্দেই আছেন বলে জানিয়েছেন তারা। 

বেনেট কাস্পার উইলিয়ামস জানান, আমি সবসময় জানতাম যে আমার শরীর গর্ভাবস্থা অর্জন করতে পারে। তবে যতক্ষণ পর্যন্ত না আমি আমার লিঙ্গের ধারণা থেকে বের হতে পেরেছি ততক্ষণ পর্যন্ত আমি সফল হতে পারিনি। আমি আমার শরীরকে একটি হাতিয়ার হিসাবেই ভাবতে শিখেছি কিন্তু আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে, সকল কিছুর পরও আমি একটি শিশুকে পৃথিবীতে আনতে পারি।

 বেনেট-মালিক দম্পতি

তিনি আরও বলেন, আর এ কারণেই এটি এত গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা 'মাতৃত্ব' এর পরিপ্রেক্ষিতে 'নারীত্ব'কে সংজ্ঞায়িত করা বন্ধ করি। কারণ এটি একটি মিথ্যা সমতুল্য যে সমস্ত নারীরাই মা হতে পারেন। যে সমস্ত মানুষ সন্তান ধারণ করতে পারেন তাদের মধ্যেই 'মাতৃত্ব' রয়েছে। শুধুমাত্র নারীর ক্ষেত্রেই মাতৃত্বকে চাপিয়ে দেওয়া একটি ভুল ধারণা।    

আরও পড়ুন: স্বামীর পদবি বাদ দেওয়ার কারণ জানালেন প্রিয়াঙ্কা

উল্লেখ্য, রূপান্তরকামিতাকে ইংরেজিতে Transsexualism বা ট্রান্সেক্সুয়্যালিজম বলে। এটি বিশেষ একটি প্রবণতা বোঝায় যখন সেক্স বা 'জৈব লিঙ্গ' ব্যক্তির জেন্ডার বা 'সাংস্কৃতিক লিঙ্গ'-এর সাথে প্রভেদ তৈরি করে। রূপান্তরকামী বা ট্রান্সসেক্সুয়াল ব্যক্তিগণ এমন একটি যৌন পরিচয়ের অভিজ্ঞতা লাভ করেন যা ঐতিহ্যগতভাবে তাদের নির্ধারিত যৌনতার সাথে স্থিতিশীল নয়, এবং নিজেদেরকে স্থায়ীভাবে সেই লিঙ্গে পরিবর্তন করতে চান।

রূপান্তরকামী মানুষেরা ছেলে হয়ে (বাহ্যিক বৈশিষ্ট্যে) জন্মানো সত্ত্বেও মনমানসিকতায় নিজেকে নারী ভাবেন (কিংবা কখনো আবার উল্টোটি- নারী হিসেবে জন্মানোর পরও মানসিক জগতে থাকেন পুরুষসুলভ)। এদের কেউ কেউ বিপরীত লিঙ্গের পোশাক পরিধান করেন, এই ব্যাপারটিকে বলা হয় (ট্রান্সভেস্টিজম/ক্রসড্রেস), আবার কেউ সেক্স রিঅ্যাসাইনমেন্ট সার্জারির মাধ্যমে রূপান্তরিত মানবে পরিণত হন।  


একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন