ঢাকা ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

জাতিসংঘের শুভেচ্ছা দূত হলেন জয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ০১ জানুয়ারী ২০২২ ১৯:২৮:০৬ আপডেট: ০১ জানুয়ারী ২০২২ ১৯:৩০:০৪
জাতিসংঘের শুভেচ্ছা দূত হলেন জয়া

এই বছরের জন্য জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) শুভেচ্ছা দূত হিসেবে নিযুক্ত হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজক ও সক্রিয় উন্নয়ন কর্মী হিসেবেও খ্যাতি রয়েছে জয়ার। 

শনিবার (১ জানুয়ারি) থেকে শুভেচ্ছা দূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বলে শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) ইউএনডিপি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়।

ইউএনডিপির শুভেচ্ছা দূত হিসেবে তিনি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি অর্জনে সবার সচেতনতা বাড়াতে কাজ করবেন বলে জানা গেছে। 

শুভেচ্ছা দূত হিসেবে নিয়োগের প্রতিক্রিয়ায় জয়া আহসান বলেন, আমি ইউএনডিপির শুভেচ্ছাদূত হতে পেরে একদিকে যেমন আনন্দিত অন্যদিকে দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে পারব ভেবে সম্মানিতও।  

সবাই মিলে বাংলাদেশসহ বিশ্বকে আরো সুন্দর, সহনশীল করে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি আরও বলেন, আমাদের এই সুন্দর পৃথিবী রক্ষার জন্য যেই লক্ষ্যমাত্রা যা এসডিজি নামে নির্ধারণ করা হয়েছে ২০৩০ সালের মধ্যে সেটি অর্জন করতে হলে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

আরও পড়ুন: বাংলা সিনেমা: ২০২০’র খরা একুশেও কাটেনি, এবার চোখ ২২ এর দিকে

এসময় তিনি তার কাজের মধ্যে দিয়ে এই বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে চেষ্টা করবেন বলেও অঙ্গীকার করেন।

ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি বলেন, পৃথিবীকে সুন্দর ও বাসযোগ্য করে তোলা আমাদের সবার অঙ্গীকার। এই অঙ্গীকার রক্ষা করতে হলে আমাদের সবাইকে যার যার দায়িত্ব পালন করতে হবে। তবেই কেবল এসডিজি অর্জন করা সম্ভব হবে। নতুন শুভেচ্ছা দূত জয়া আহসানের প্রশংসা করে তিনি বলেন, জয়া একজন জনপ্রিয় শিল্পীই নন, পাশাপাশি তিনি সমাজ উন্নয়নে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এমন একজন ইউএনডিপির শুভেচ্ছা দূত হওয়ায় আমরা সৌভাগ্যবান। তার মাধ্যমে আমাদের কথা এখন দেশ ও দেশের বাইরে মানুষকে আরো বেশি করে পৌঁছানো যাবে।  

জয়া আহসান ইউএনডিপির সঙ্গে এসডিজি ছাড়াও দারিদ্র, নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন, সহনশীলতা, পরিবেশ, জ্বালানি এবং লিঙ্গ সমতা বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে কাজ করবেন।  


একাত্তর/জো 

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন