ঢাকা ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

ডিআইজি পার্থ গোপালের আট বছরের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ০৯ জানুয়ারী ২০২২ ১৩:২০:৩৯ আপডেট: ০৯ জানুয়ারী ২০২২ ১৮:২৬:০৭
ডিআইজি পার্থ গোপালের আট বছরের কারাদণ্ড

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের বরখাস্ত হওয়া উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি প্রিজনস) পার্থ গোপাল বণিকের আট বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। ঘুষগ্রহণ, অর্থ পাচার আইনের মামলায় এই সাজা পেলেন তিনি। রায় পড়ার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন পার্থ গোপাল। 

রোববার (৯ জানুয়ারি) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ২৭ ডিসেম্বর একই আদালতের বিচারক রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য রোববার (৯ জানুয়ারি) দিন ধার্য করেন। মামলায় বিভিন্ন সময় আদালতে ১২ জন সাক্ষ্য দেন।

২০১৯ সালের ২৮ জুলাই কারাগারের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে দুদকের প্রধান কার্যালয়ে পার্থ গোপাল বণিককে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে অভিযানে যায় কমিশন। ওই দিন বিকেলে ধানমন্ডির ভূতের গলিতে পার্থ গোপালের ফ্ল্যাট থেকে নগদ ৮০ লাখ টাকা উদ্ধার করে দুদক। এরপরই তাকে আটক করা হয়। পরদিন ২৯ জুলাই তার বিরুদ্ধে দুদক মানি লন্ডারিংয়ের মামলা করে।

অভিযোগপত্রে উল্লেখ, পার্থ গোপাল বণিক (বরখাস্ত) সরকারি চাকরিতে দায়িত্ব পালনকালে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও ঘুষের মাধ্যমে ৮০ লাখ টাকা অবৈধভাবে অর্জন করেন। এসব টাকা গোপন করে তার নামীয় কোনো ব্যাংক হিসাবে জমা না রেখে বিদেশে পাচারের উদ্দেশে নিজ বাসায় লুকিয়ে রাখেন।

আরও পড়ুন: মিতু হত্যা: নিজের করা মামলায় গ্রেপ্তার বাবুল আক্তার

এদিকে পার্থের দাবি, ৮০ লাখ টাকা তার বৈধ আয় থেকে অর্জিত। এর মধ্যে ৩০ লাখ শাশুড়ি দিয়েছেন, বাকিটা টাকা তার সারা জীবনের জমানো।

গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর তিনি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন পার্থ গোপাল। শুনানি শেষে বিচারক আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন