ঢাকা ২২ মে ২০২২, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

দেশের মানুষের কাছে এটি ছিল এক অবিস্মরণীয় ঘটনা

অহিদুল ইসলাম, একাত্তর
প্রকাশ: ১০ জানুয়ারী ২০২২ ১২:২৪:৪৫ আপডেট: ১০ জানুয়ারী ২০২২ ১৯:০২:৫৫
দেশের মানুষের কাছে এটি ছিল এক অবিস্মরণীয় ঘটনা

পাকিস্তান কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের আজকের দিনে দেশে ফিরে আসেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। দেশের মানুষের কাছে এটি ছিল বিজয়ের পর সবচেয়ে আনন্দের আর স্মরণীয় ঘটনা। প্রিয়জন ফিরে পাওয়ার আনন্দ পেয়েছিলেন সব শ্রেণিপেশার মানুষ। 

লন্ডন আর দিল্লী হয়ে ১০ জানুয়ায়ী ঢাকার তেজগাঁও বিমানবন্দরে পা রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তখন পুরো বাংলাদেশ যেনো বঙ্গবন্ধুকে স্বাগত জানাতে জড়ো হয়েছিলেন বিমানবন্দরে। এসেছিলেন বঙ্গবন্ধুর পিতা। জাতীয় ৪ নেতা। স্বাধীনতা ছিনিয়ে আনা মুক্তিযোদ্ধারা এসেছিলেন রাইফেল কাঁধে। যেই স্মৃতি আজও তাদের মনে উজ্বল হয়ে আছে। তাদেরই একজন মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন ভূইয়া। নরসিংদী থেকে বঙ্গবন্ধুকে দেখতে যিনি ঢাকায় এসেছিলেন। 

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ফিরে এসেই দেশ গঠনের কাজে ঝাঁপিয়ে পরেছিলেন বঙ্গবন্ধু। এক বছরের মধ্যেই দেশের মানুষকে একটি সংবিধান উপহার দিয়েছিলেন। ১০৪টি দেশের স্বীকৃতি আদায় করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। জাতিসংঘসহ বহু আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যপদ পেয়েছিলো বাংলাদেশ। 

জার্মান বা জাপানে এখনো মিত্রবাহিনী হিসেবে আমিরিকান সৈনিকরা এখনও অবস্থান করছে। বহু দেশেই স্বাধীনতার সহায়তাকারী হিসেবে মিত্রবাহিনীর সদস্যদের ঘাঁটি রয়েছে। ব্যতিক্রম শুধু বাংলাদেশ। যা সম্ভব হয়েছিলো বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের গুনের কারণেই।  

১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ শেখ মুজিবুর রহমানকে পাকিস্তানে নিয়ে কারাবন্দি করে রাখে ইয়াহিয়া সরকার। সামরিক আদালতে বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির দন্ডও দেয়া হয়েছিলো। ১৬ ডিসেম্বর দেশ স্বাধীন হলে বিদেশী চাপে ৮ জানুয়ারী পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পান বঙ্গবন্ধু। 


একাত্তর/এনএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন