ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

ওমিক্রনের বিস্তারেও স্বাস্থ্য সতর্কতা নেই শাহজালালে

ঝুমুর বারী, একাত্তর
প্রকাশ: ১০ জানুয়ারী ২০২২ ২২:০০:৫৪ আপডেট: ১১ জানুয়ারী ২০২২ ১৬:৪৪:৫৩
ওমিক্রনের বিস্তারেও স্বাস্থ্য সতর্কতা নেই শাহজালালে

করোনার নতুন ঢেউ প্রতিরোধে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে কোন স্বাস্থ্য সতর্কতা নেই। এখনো জারি হয়নি আনুষ্ঠানিক কোন নির্দেশনা। 

যাত্রী বা দর্শনার্থীদের বেশিরভাগের মুখেই নেই কোন মাস্ক। কেউই মানছেন না কোন সামাজিক দূরত্ব। কর্তৃপক্ষ বলছে, এতো অল্প জায়গায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা কঠিন ব্যাপার।

বিদেশ যাবার আগে করোনা পরীক্ষা করতে ১০ ঘণ্টা আগেই বিমানবন্দরে এসেছেন হাসেম। পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়ে তাই পরিবার পরিজনের সাথে গল্পে মশগুল হয়ে পড়েন তিনি। 

সোমবার সকালের দিকে দিকে দেশের প্রধান বিমানবন্দরে গিয়ে হাসেমের মতো এমন অনেক যাত্রীকেই চোখে পড়েছে এই প্রতিবেদকের। 

দেখতে পেয়েছেন, নিজের কর্মস্থলে ফিরে যেতে বিমানবন্দরে আসা বেশিরভাগ যাত্রীর মুখেই নেই কোন মাস্ক। মানছেন না সামাজিক দূরত্বের বিধিও।  

আর যারা বিদেশ থেকে আসছেন তাদের অবস্থা আরো করুণ। কারো কারো মুখে মাস্ক থাকলেও সামাজিক দূরত্ব মানা সম্ভব হচ্ছে না।

গেলো বছর চার ডিসেম্বর থেকে আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানা, ঘানা, লেসোথো, নামিবিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং জিম্বাবুয়ে থেকে যারাই আসবে তাদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের কথা বলেছে কর্তৃপক্ষ। 

কিন্তু আফ্রিকা ছাড়া ইউরোপ-আমেরিকাতেও সমানে ছড়াচ্ছে করোনার ওমিক্রন ধরন। গেলো এক মাসে ভারতসহ আশেপাশের দেশগুলোতে বেড়েছে এর প্রভাব। যদিও এ ব্যাপারে কোন সতর্কতা এখনো আসেনি বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দরের পরিচালক।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ-উল আহসান বলেন, নানা কারণে বর্তমানে যাত্রীর চাপ অনেক বেশি। এতো মানুষের ভিড়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা কঠিন, মানানো আরো কঠিন।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসার পর, গেল ছয় মাসে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর দিয়ে আগের তুলনায় তিন গুণ হয়েছে যাত্রী ও ফ্লাইটের সংখ্যা। কিন্তু, করোনার সংক্রমণ আবারও বাড়তে শুরু করলেও, কোন সতর্কতা চোখে পড়েনি বিমানবন্দরে।



একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন