ঢাকা ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

সিরাজগঞ্জে শিক্ষার্থীদের টিকায় অভিভাবকদের ক্ষোভ

সিরাজগঞ্জে শিক্ষার্থীদের টিকায় অভিভাবকদের ক্ষোভ
প্রকাশ: ১১ জানুয়ারী ২০২২ ১৭:৫৯:৪১ আপডেট: ১১ জানুয়ারী ২০২২ ১৮:০৪:২৮
সিরাজগঞ্জে শিক্ষার্থীদের টিকায় অভিভাবকদের ক্ষোভ

সিরাজগঞ্জে তাড়াশ উপজেলায় ১২-১৮ বছরের শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা কার্যক্রম নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন অভিভাবকরা। তাদের দাবি, গত আট জানুয়ারি থেকে উপজেলার ইউনিয়ন ভূমি অফিস কার্যালয়ে দুটি বুথে শুরু হওয়া টিকাদান কর্মসূচিতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। যদিও শিক্ষার্থীদের এই টিকায় ভিড় দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিয়েছেন ক্ষোদ অভিভাবকরাই।

সরেজমিন, মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় টিকাদান কেন্দ্রে গিয়ে চোখে পড়ে উপজেলার ৯টি বিদ্যালয়ের তিন হাজার ৪২ জন শিক্ষার্থীকে একদিনে টিকা দেওয়ার আয়োজন করা হয়েছে। কয়েক হাজার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আসা অভিভাবকরা এই ভিড় আরও বাড়িয়ে দেন। এসময় অভিভাবকসহ অনেক শিক্ষার্থীর মুখে মাস্ক দেখা যায়নি। 

কয়েকজন অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, একসঙ্গ এতো শিক্ষার্থীকে এক কেন্দ্রে নিয়ে টিকাদানের সিদ্ধান্ত সঠিক হয়নি। এখন উল্টাে শিক্ষার্থীরা আক্রান্তের ঝুঁকিতে পড়ছে। কর্তৃপক্ষ চাইলে আরাও আগে থেকেই কেন্দ্র সংখ্যা বাড়াতে পারতেন।  

রায়হান আলী নামের এক অভিভাবক জানান, টিকা নিতে সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া তার ছেলে সকাল সাড়ে আটটায় বাসা থেকে বের হয়ে এসেছে। কিন্তু এখানে যেভাবে গাদাগাদি করে দাড়িয়ে আছে, সেখানে তিনি তার ছেলেকেও খুঁজে পাচ্ছেন না। এভাবে থাকার কারণে সকল শিক্ষার্থীই ক্লান্ত হয়ে পড়ছে। যদি স্কুলে বা এলাকা ভিত্তিক টিকাদান কর্মসূচি হতো তবে শিক্ষার্থীদের এমন অব্যবস্থাপনা আর স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হতো না। 

অভিভাবকদের অভিযোগ, শিক্ষার্থীদর ফাইজার টিকা দেওয়া হচ্ছে। ফাইজারের এ টিকা প্রয়োগে বেশ কিছু নিয়মনীতি মানতে হয়। কিন্তু এখানে নিয়মের কিছুটা ব্যত্যয় ঘটছে।

আরও পড়ুন: কুমিল্লায় ‘হানি ট্র্যাপ’ চক্রের নারীসহ পাঁচ সদস্য আটক

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মনোয়ার হাসান জানান, ফাইজারের টিকা সংরক্ষণ এবং প্রয়োগ দুটোই শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ করে দিতে হয়। সেটি তাড়াশের ভূমি অফিসে থাকার কারণে সেখানে ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে শিক্ষার্থীদের ভিড় বেশি হওয়ায় তা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হচ্ছেনা। তবে যেহেতু শীতকাল, তাই আশা করা যায় কোনো সমস্যা হবেনা।  


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন