ঢাকা ২৯ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

স্ত্রীকে খুন করে স্বামীর আত্মহত্যা

সংবাদদাতা, ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ)
প্রকাশ: ১২ জানুয়ারী ২০২২ ১৮:০৫:২৬ আপডেট: ১২ জানুয়ারী ২০২২ ১৯:১৮:০৭
স্ত্রীকে খুন করে স্বামীর আত্মহত্যা

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় পারিবারিক কলহের জের ধরে পাঁচ সন্তানের জননী স্ত্রীকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার পর স্বামী নিজেও গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানা গেছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার টানমেহারী গ্রামে তাদের বাড়ি থেকে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে ধর্মপাশা থানা পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আনু মিয়ার মেয়ে স্বাধীনা আক্তার (৫০) ও মৃত শমসের আলীর ছেলে বাচ্চু মিয়া (৬০) দীর্ঘদিন ধরে সংসার করছেন। তাদের চার মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। চার মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। নবম শ্রেণি পড়ুয়া একমাত্র ছেলে অনিককে নিয়ে বাড়িতে বসবাস করতেন তারা। সম্প্রতি নানা বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলে আসছিল। প্রায়ই তারা ঝগড়াঝাটি করতেন। 

বুধবার সকালে দম্পতির একমাত্র পুত্র অনিক করোনার টিকা দিতে চলে যায়। দুপুর ১২টার সময় বাড়ি থেকে একজন ফোন করে তাকে জানায় ঘরের দরোজা আটকে তার মাকে মারধর করছেন তার বাবা। সে দ্রুত টিকা গ্রহণ করে বাড়িতে চলে আসে। বাড়িতে গিয়ে স্বজনদের নিয়ে তার বাবা ও মাকে অনেক ডাকাডাকি করেও কোনো সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয় তারা। পরে পুলিশ ও প্রশাসনসহ স্থানীয় জনতা জড়ো হয়ে ঘরের দরোজা খুলে মর্মান্তিক দৃশ্য দেখেন।

ধর্মপাশা থানার ওসি খালেদ চৌধুরী বলেন, খবর পেয়ে আমরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির হাসানের নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে ছুটে আসি। ঘরের দরোজা ভেঙ্গে স্ত্রীর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ ও স্বামীর ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে আমরা সুরতহাল রিপোর্ট করি। স্বামীই স্ত্রীকে খুন করে নিজে আত্মহত্যা করেছেন বলে আমাদের প্রাথমিক ধারণা। 

আরও পড়ুন: শনিবার থেকে আগের ভাড়াতে অর্ধেক আসন খালি রেখে চলবে বাস

তিনি আরও জানান, এখন তাদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণের প্রস্তুতি নিচ্ছি। এ ঘটনায় পরে মামলা দায়ের হবে বলে জানান তিনি। 

ধর্মপাশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির হাসান পলাশ বলেন, আমরা খবর পাবার পরই পুলিশ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছি। ঘটনাটি মর্মান্তিক। দম্পতির সন্তান জানিয়েছেন পারিবারিক কলহ ছিল তার বাবা-মায়ের মধ্যে। 


একাত্তর/আরবিএস 

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন