ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

৯৭ বছরের বৃদ্ধাকে নির্যাতনকারী সেই পুত্রবধূ গ্রেপ্তার

সংবাদদাতা, কলাপাড়া
প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারী ২০২২ ১৪:২৬:০৮
৯৭ বছরের বৃদ্ধাকে নির্যাতনকারী সেই পুত্রবধূ গ্রেপ্তার

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ৯৭ বছরের বৃদ্ধা শ্বাশুড়িকে নির্যাতন করার দায়ে পুত্রবধূ খায়রুন্নাহার হেনাকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) বিচার বিভাগীয় তদন্তে নির্যাতনের সত্যতা নিশ্চিত হলে, কলাপাড়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক হেনার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। পরে একইদিন সন্ধায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

কলাপাড়া থানার ওসি মো: জসীম জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কলাপাড়ার ধানখালী ইউনিয়নের নিশানবাড়িয়া মাছুয়াখালী গ্রাম থেকে ওয়ারেন্টের আসামি খায়রুন্নাহার হেনাকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

বৃদ্ধার উপর নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে একাত্তর টিভিতে সংবাদ প্রচার হলে কলাপাড়াসহ সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। মানবাধিকারকর্মীসহ জনপ্রতিনিধিরা এ ঘটনার নিন্দা জানান এবং নির্যাতনকারী পুত্রবধু হেনার শাস্তি দাবি করেন। সমাজসেবা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে বৃদ্ধাকে চিকিৎসা সহায়তা দেয়া হয়।

এর আগে ২০২১ সালের ২২ নভেম্বর রাতে, বৃদ্ধা শ্বাশুড়ি রাবেয়া বেগম ঘরের মালামাল নিয়ে বাবার বাড়ি যেতে নিষেধ করায় তাকে নির্মম নির্যাতন করে পুত্রবধু খায়রুন্নাহার হেনা। গুরুতর অসুস্থ্য অবস্থায় তাকে পরদিন ২৩ নভেম্বর কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে তার ছেলে মিজানুর রহমান। মায়ের ওপর নির্যাতনের বিচায় চেয়ে ২৫ নভেম্বর কলাপাড়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন ছেলে মিজানুর রহমান।

মামলায় স্ত্রী খায়ুন্নাহার হেনা ও তার ভাই গোলাম পরোয়ার জয়কে আসামি করা হয়। মামলায় উল্লেখ করা হয় বৃদ্ধা রাবেয়াকে এর আগেও একাধিকবার নির্যাতন করা হয়েছে। কাচের গুড়া চিনির সাথে মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছে। খাবার চাইলেই মারধর করতো পুত্রবধূ। এমনকি তার বুকের উপর উঠে লাথিও মারা হয়। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন। 

আরও পড়ুন: নাটোরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার কিশোরী, গ্রেপ্তার পাঁচ

দীর্ঘ তদন্ত শেষে ঘটনার সত্যতা পেয়ে গত বৃহস্পতিবার কলাপাড়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক প্রধান আসামী খায়রুন্নাহার হেনার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে ও মামলার দ্বিতীয় আসামি জয়ের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। আদালত থেকে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরপরই পুলিশ অভিযান চালিয়ে খায়রুন্নাহার হেনাকে গ্রেপ্তার করে। 

 

একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন