ঢাকা ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

ইউক্রেনে হামলার পরিকল্পনা করছে রাশিয়া: যুক্তরাষ্ট্র

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ১৫ জানুয়ারী ২০২২ ১০:৫৩:০৫ আপডেট: ১৫ জানুয়ারী ২০২২ ১২:৫৪:৪৯
ইউক্রেনে হামলার পরিকল্পনা করছে রাশিয়া: যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্র বলছে, পূর্ব ইউক্রেনে একদল প্রশিক্ষিত বাহিনী তৈরি রেখেছে রাশিয়া। যার মাধ্যমে সেখানে সামরিক অভিযান চালানোর অজুহাত তৈরির পরিকল্পনা করছে পুতিন সরকার। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছেন পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি জন কারবি।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) জন কারবি বলেন, রাশিয়া সাজানো হামলা চালাতে নাশকতাকারী একটি দলকে প্রস্তুত করেছে। এমনভাবে হামলাটি পরিকল্পনা করা হয়েছে যেন মনে হয় ইউক্রেনে বসবাসরত রুশভাষীদের লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। এবং এ সুযোগে রুশ বাহিনী ইউক্রেনে ঢুকে পড়বে।

এদিকে শুক্রবার ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও প্রায় একই ধরণের শঙ্কা প্রকাশ করে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের। 

এর আগে বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, রাশিয়ার স্পেশাল সার্ভিসের একটি দল ইউক্রেনকে ফাঁসাতে রুশ সেনাদের উসকে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, আমাদের গোয়েন্দা সংস্থার কাছে তথ্য আছে যে রাশিয়া একটি সামরিক অভিযান পরিচালনার পরিকল্পনা করছে। একই খেলা আমরা ২০১৪ সালেও দেখেছি।

যদিও যুক্তরাষ্ট্র ও ইউক্রেনের এমন দাবি একেবারে উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়া। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ যুক্তরাষ্ট্রের এসব তথ্য ভিত্তিহীন বলে আখ্যায়িত করেছেন। 

দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, এখন পর্যন্ত এসব অভিযোগের পক্ষে নিশ্চিত কোনো প্রমাণ কেউ দেখাতে পারেনি।

আরও পড়ুন: কক্সবাজার উপকূলে অস্ত্রসহ ছয় জলদস্যু আটক

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের দেওয়া এসব তথ্যকে ‘একদম নির্ভুল’ বলে দাবি করেছেন জন কারবি। তার মতে, হামলার জন্য তৈরি রাখা দলে রাশিয়ার গোয়েন্দা সদস্য, সেনাসদস্যসহ অন্য নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যেরা থাকতে পারেন।

২০১৪ সালে গণবিক্ষোভের মধ্যদিয়ে ক্ষমতাচ্যুত হন ইউক্রেনের তৎকালীন সরকার। ইউক্রেনের রুশপন্থি ওই সরকারের পতনের পর দেশটির অধীনে থাকা ক্রিমিয়া অঞ্চল দখল করে নেয় রাশিয়া। এছাড়া রাশিয়া পূর্ব ইউক্রেনে রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের মদদ দিয়েছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।  


একাত্তর/আরবিএস   

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন