ঢাকা ১৪ আগষ্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯

‘কাকা’ তৈমুরকে মিষ্টিমুখ করালেন আইভী

হাবিব রহমান, একাত্তর
প্রকাশ: ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ১৯:৫৫:৪৩ আপডেট: ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ২০:১৫:১৫
‘কাকা’ তৈমুরকে মিষ্টিমুখ করালেন আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে পরাজিত প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী তৈমুর আলম খন্দকারের বাসায় মিষ্টি নিয়ে গেলেন তৃতীয়বার নির্বাচিত মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী।

সেখানে তিনি জানান, দলমত নির্বিশেষে সবাইকে সাথে নিয়েই তিনি নারায়ণগঞ্জকে তিনি একটি আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তুলতে চান।

আর, নবনির্বাচিত মেয়রের সেই সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সব ধরনের সহযোগিতা দেয়ার কথা দিয়েছেন বিএনপির জেষ্ঠ নেতা  তৈমুর আলম।

এ যেন চিরাচরিত নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি। ভোটের মাঠে নানা অভিযোগের চিত্রটা একেবারেই পাল্টে গেলো মাত্র ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেলে, পরাজিত প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকারের বাসায় মিষ্টি নিয়ে হাজির হন তৃতীয় বারের মতো নির্বাচিত মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভি।

পরে, নিজ হাতে তৈমুরকে মিস্টি মুখ করান। তৈমুরও আর্শীবাদ করলেন আইভিকে। নির্বাচনী সংস্কৃতির ইতিবাচক এই রেওয়াজই হতে পারে দেশের রাজনীতির আলোর দিশারী।

সেলিনা হায়াৎ আইভীর বাবা প্রয়াত মেয়র আলী আহাম্মদ চুনকার শিষ্য ছিলেন তৈমুর আলম খন্দকার। তখন থেকেই তাদের সম্পর্কটা গভীর। তৈমুরকে কাকা বলে ডাকেন আইভী।

দুজন যখন এক জায়গায় হন তখন এক আবেগঘন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। মিষ্টি নিয়ে আসার পর তাই ভাতিজি আইভীকে বুকে টেনে নেন চাচা তৈমুর।

পরে, তৈমুর আলম সাংবাদিকদের জানান, দলমত নির্বিশেষে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে তিনি পাশে থাকবেন। আগেও ছিলেন, আগামীতেও থাকবেন।

আইভীকে অভিনন্দন জানিয়ে তৈমুর বলেন, ‘আইভীর বাবা আলী আহম্মদ চুনকার সঙ্গে আমার আধ্যাত্মিক সম্পর্ক। এই সম্পর্ক কখনো নষ্ট হবে না। আপনারা সবাই আইভীকে সহযোগিতা করবেন। আমার শ্রদ্ধা আলী আহম্মদ চুনকার জন্য আজীবন থাকবে। তাঁর মেয়ে আইভীর পাশে সব বিপদ-আপদে আছি, থাকব। অদৃশ্য শক্তির মতো পাশে থাকব।’

তৈমুর আরো বলেন, ‘এটা নির্বাচন ছিলো। আমরা আগামীতে সুন্দরমতো থাকব। এখানে অন্য কথাবার্তা কাজে আসবে না। আমি আগেই বলেছি, আইভীর সঙ্গে আমার অন্তরের ও আধ্যাত্মিক সম্পর্ক’। তিনি সবার প্রতি আহ্বান জানান মেয়রকে সহযোগিতা করার।

আর, ভোটারদের ধন্যবাদ জানিয়ে আইভি বলেন, সবাই যে তার ওপর আস্থা রেখেছে সেই প্রতিদান দিতে সবাইকে তিনি পাশে চান।

তৈমুর আলমকে কাছে পেয়ে কেমন লাগছে এমন প্রশ্নের জবাবে আইভী বলেন, তিনি আমার কাকা, আমি আগেই বলেছি আমি যাবোই তার বাসায়।

তিনি আরো বলেন, ভবিষৎতে কাজ করতে গেলে কাকার পরামর্শ অবশ্যই নিবো। বিগত নারায়ণগঞ্জ পৌরসভায় নির্বাচিত হয়েও এসেছিলাম, তখনও তিনি অনেক পরামর্শ দিয়েছেন। কাকাকে সাথে নিয়েই অনেক উন্নয়ন মুলক কাজ করেছি।

কাকা আমার একটা স্কুলের জন্য সহযোগিতা করেছে, এমন সহযোগীতা থাকবেই। কারণ আমরা নারায়ণগঞ্জের মানুষ এবং সেই সাথে একটা সর্ম্পক আছে।

সেই সম্পর্কের আলোকে, নারায়ণগঞ্জবাসির স্বার্থে, জনগনের স্বার্থে, দলের উর্ধ্বে উঠে কাজ করা এটা একটা শ্রেষ্ঠ এবাদত। আমি কাকার থেকে পরামর্শ অবশ্যই চাইবো।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদেরও সবার শুভকামনা চাচ্ছি। আপনারা সমালোচনা আর না করে আরো সহযোগিতা করবেন।

তিনি আরও বলেন, কাকির সাথে সব সময় আমার কথা হয়। কাকি আমার খোঁজ খেবর নেন। আমি এই রাস্তা দিয়ে আমার বাবার কবরে যাই, যাওয়ার সময় আমি দেখা করে যেতাম। 

কাকার ছোট ভাই খোরশেদ আলম খন্দকার আমারই কাউন্সিলর। আমি অনেক সহযোগিতার মাধ্যমেই তার কাজ করে থাকি।

ওই রকম কিছুই থাকবে না। ইলেকশন কয়েক দিনের বিষয়। এইটা এই রকমই হয়। আপনারাও মিডিয়া খোঁচাখুচি করে অনেক কিছু বের করার চেষ্টা করেন।

যাই হোক এমন না হলে ইলেকশনের মজা থাকে না, এইটা যেন এই পর্যন্তই থাকে। আমারা যেন নারায়ণগঞ্জে বসবাস করতে পারি ও এক সাথে কাজ করতে পারি।

এর আগে দুপুর দেড়টার দিকে হাসিমুখে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনবারের মেয়র। বলেন, এবারের মেয়াদে বাস্তবায়ন হবে মেগা প্রকল্পগুলো।

আরও পড়ুন: এবারও সার্চ কমিটির মাধ্যমে ইসি চায় আওয়ামী লীগ

সকাল থেকেই নির্বাচিত মেয়র আইভির বাসার সামনে চলছিলো বিজয় উৎসব। ভোটাররাও স্বীকার করেন, দুর্নীতিমুক্ত ও স্বচ্ছতার কারণেই মানুষ তাকে নির্বাচিত করেছে।

১৮ বছর সিটি করপোরেশনের চেয়ার দখলে রাখা মেয়র আইভি নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন কতটা করতে পারেন, সেই হিসাবই কষবেন ভোটাররা।


একাত্তর/টিএ/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১২ দিন আগে