ঢাকা ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

'ভাই' বলায় ক্ষেপে গেলেন নির্বাচন কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিনিধি, পটুয়াখালী
প্রকাশ: ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ২১:০৩:২৩ আপডেট: ১৭ জানুয়ারী ২০২২ ২১:০৭:২৫
'ভাই' বলায় ক্ষেপে গেলেন নির্বাচন কর্মকর্তা

'ভাই' ডাকায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে সাংবাদিককে বেয়াদব বলেছেন উপ‌জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: শাহাদৎ হো‌সেন। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, রিয়াজ কাজী নামে এক ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্রের ভুল সংশোধনের বিষয়ে জানতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার অফিসে যান দৈনিক যুগান্তরের মিজার্গঞ্জ প্রতিনিধি ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাদ্দাম।

এ সময়ে নিবার্চন অফিসার মো: শাহাদৎ হো‌সেন‌কে 'ভাই' বলে সম্মোধন করে সমস্যাটির সমাধানে করণীয় বিষয়ে জানতে চাইলে ক্ষেপে যান তিনি।

সাংবাদিককে বলেন, আমাকে ভাই বললেন কেন? আমি আপনার কেমন ভাই? খালাতো ভাই না চাচাতো ভাই?

এসব বলে তিনি ওই সাংবাদিকের সাথে অশোভন আচরণ করেন। পরে তিনি পরিচয়পত্রের সংশোধনের ব্যাপারে কোন কিছুই না বলে অন্য কাজে ব্যস্ত হয়ে যান। 

মিজার্গঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সাদ্দাম বলেন, 'ভাই' বলে সম্মোধন করায় তিনি আমার ওপর ক্ষেপে গিয়ে বেয়াদবসহ নানা অশোভন আচরণ করেছেন। আমি উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার বিষয়টি অবহিত করেছি।

আরও পড়ুন: এক ডোজ টিকাও পাননি বেশিরভাগ বাসচালক ও শ্রমিক

মিজার্গঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট মো. মজিবুর রহমান বলেন, আসলে উপজেলা নিবার্চন কর্মকর্তা কাজটি ঠিক করেননি। তাদের কাছে মানুষ সেবা পেতে চায়। তার আচরণে মনে হচ্ছে তিনি জনগণের কাছ থেকে শুধু 'স্যার' সম্মোধন শুনতেই এসেছেন। তার বক্তব্য প্রত্যাহার করা উচিত।

মিজার্গঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. শাহাদাৎ হোসেন সাংবাদিকদের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি তাকে বিশেষ ভালো চিনি না। তিনি আমাকে ভাই বলে সম্মোধন করেছেন।

পটুয়াখালী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খান আবি শাহানুর খান বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক। মিজার্গঞ্জ নির্বাচন কর্মকর্তা কেন এরকম অশোভন আচরণ করেছেন, তার কাছে জানতে চাওয়া হবে। 

মিজার্গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. তানিয়া ফেরদৌস বলেন, বিষয়টি অবগত হয়েছি। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।


একাত্তর/টিএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন