ঢাকা ১৭ আগষ্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

স্বাস্থ্যবিধি ও সতর্কতার বালাই নেই শাহজালাল বিমানবন্দরে

রহিম রুমন, একাত্তর
প্রকাশ: ২৮ জানুয়ারী ২০২২ ২০:২৫:১৮ আপডেট: ২৮ জানুয়ারী ২০২২ ২০:৩৯:২৪
স্বাস্থ্যবিধি ও সতর্কতার বালাই নেই শাহজালাল বিমানবন্দরে

করোনার সংক্রমণ বেড়েই চললেও আকাশপথে বাংলাদেশে প্রবেশের সবচেয়ে বড় বন্দর ঢাকার হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেই উপেক্ষিত হচ্ছে সামাজিক দূরত্ব। 

শুধু তাই নয়, সেখানে মানা হচ্ছে না কোনো স্বাস্থ্যবিধিও। মাস্ক পরতেও অনীহা বিমানবন্দরে আসা যাত্রী ও তাদের স্বজনদের। বিশেষ করে করোনা পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে হযবরল অবস্থা।

সেই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে কোনো তদারকি দেখা যায়নি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের। সতর্ক করার মধ্যেই সীমাবন্ধ থাকছে সব প্রচেষ্টা।

সাপ্তাহিক ছুটির দিন, শুক্রবার সকালের দিকে শাহজালাল বিমানবন্দরে গিয়ে দেখা গেলো দুই নম্বর আগমনী টার্মিনালে গায়ে গা লাগিয়ে স্বজনের জন্য অপেক্ষায় শত শত মানুষ।  

করোনার আতি সংক্রামক ওমিক্রন ধরনের বাড়-বাড়ন্তের মধ্যে, সুরক্ষার যেসব স্বাস্থ্যবিধি আছে তার অন্যতম সামাজিক দূরত্বের ছিঁটেফোঁটাও নেই বিমানবন্দরে। 

করোনা নিয়ে ধরনের বাড়তি সতর্কতা তো দূরের কথা, স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই শাহজালাল বিমানবন্দরে। পরিস্থিতি সামাল দিতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

শুধু সামাজিক দূরত্বই নয়, করোনা সর্বোচ্চ সংক্রমণ আর শনাক্তের হারের এই সময়ে মাস্ক পরাতেও কোনো গুরুত্ব দিচ্ছেন না অনেককে। মাস্ক থাকলেও মুখে পরা নেই।

কেন মাস্ক পরছেন না, এমন প্রশ্নের কোন সদুত্তরও তাদের জানা নেই। অনেকে আবার দিচ্ছেন নানা ধরনের খোড়া যুক্তি। অনেকে বিরক্তিও প্রকাশ করেছেন এমন প্রশ্নে। 

বিমানবন্দরে সামাজিক দূরত্ব কিংবা করোনা সুরক্ষায় যাত্রী আর তাদের স্বজনদের এমন গাফিলতি আর উদাসীনতায় যেন অসহায় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। 

আরও পড়ুন: ২০ বছর পর ছদ্মবেশে থাকা ফাঁসির আসামি গ্রেপ্তার

নেই কোনো তৎপরতাও। তারা বলছেন, যাত্রীদের বার বার সতর্ক করা হয়েছে যাতে একজনের বেশি স্বজন নিয়ে বিমানবন্দরে না আসেন। কিন্তু কেই কথা শুনছে না। 

গলা ফাটিয়ে মাইকিং করেও নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না পরিস্থিতি। এমন ঝুঁকির মধ্য দিয়েই হাজার হাজার যাত্রী আসা যাওয়া করছে দেশের সবচেয়ে বড় আন্তর্জাতিক এ বিমানবন্দর দিয়ে।

এদিকে, করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের কারণে লাগামহীন বাড়ছে সংক্রমণ। তার মধ্যে বিমান বন্দরে সুরক্ষায় এমন অব্যবস্থাপনায় যাত্রীদের ঝুঁকির মাত্রা বাড়ার শঙ্কা করছেন অনেকেই।


একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৫ দিন আগে