ঢাকা ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

লাগামহীন নিত্যপণ্যের দামে নাভিশ্বাস নিম্ন ও মধ্যবিত্তের

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ১২:২৮:৩৭ আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ১৫:২৩:৪১
লাগামহীন নিত্যপণ্যের দামে নাভিশ্বাস নিম্ন ও মধ্যবিত্তের

লাগামহীন নিত্যপণ্যের দামে এখন রীতিমত নাভিশ্বাস নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের। বেড়েই চলেছে নিত্যপণ্যের দাম।

টিসিবির তথ্য বলছে আরেক দাফা দাম বেড়েছে সয়াবিন, পাম অয়েল, মাঝারী চাল, আলু ও পেঁয়াজের মতো সাতটি নিত্যপণ্যের। এছাড়া মাঘের শেষেও নাগালে আসেনি শীতের সবজি। সেই সাথে অধিকাংশ মাছই এখন নিম্নবিত্তের নাগালের বাইরে।

আন্তর্জাতিক বাজারের সাথে মিলিয়ে আরেক দফা দাম বেড়েছে ভোজ্য তেলের। নতুন দাম অনুযায়ী প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ৮ টাকা বেড়ে ১৬৮ টাকা এবং খোলা সয়াবিন তেলের দাম ৭ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৪৩ টাকায়।

সয়াবিনের পাশাপাশি রাজধানীতে গেল এক সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে পাম অয়েল, দেশি হলুদ ও পেঁয়াজ এবং আলু, দারুচিনি, মাঝারী চাল ও খোলা ময়দার।

আরও পড়ুন: বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি আত্মহত্যা

এদিকে, মাঘের শেষে এসেও সহনীয় পর্যায়ে আসেনি সবজির দাম। মূলার কেজি এখনও ৪০ টাকা। ফুলকপি-বাঁধাকপির প্রতিটি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকায়। এছাড়া শীম ৪০-৫০, বেগুন ৮০, করোনা ১০০ আর ভেণ্ডি বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা কেজিতে।

সবজির মতো এখন মাছের বাজারও চড়া। ফলে তেলাপিয়া, পাঙ্গাস আর চাষের কৈ ছাড়া অধিকাংশ মাছই এখন নিম্নবিত্তের নাগালের বাইরে। ভোক্তারা বলছেন, পণ্যমূল্যের লাগাম টানতে বাজার মনিটরিং হওয়া উচিত।

তবে ভোক্তাদের চাওয়া থাকলেও রাজধানীতে নিয়মিত অভিযান করতে দেখা যায় না বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোকে। 



একাত্তর/টিএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন