ঢাকা ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯

পাইকারিতে কমলেও খুচরায় কমেনি পেঁয়াজের ঝাঁজ

অনুপ অধিকারী তরুণ, একাত্তর
প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ১৯:০০:৫২ আপডেট: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২ ২৩:০৯:৩০
পাইকারিতে কমলেও খুচরায় কমেনি পেঁয়াজের ঝাঁজ

হঠাৎ উত্তাপ ছড়িয়ে পাইকারি বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। রাজধানী ঢাকার শ্যামবাজারে কেজিতে ১০ টাকা পর্যন্ত কমেছে পেঁয়াজের দাম।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, দিন পনেরোর মধ্যে নতুন হালি পেঁয়াজ উঠলে আরও কমবে দাম। তবে পাইকারি বাজারে দাম কমলেও, খুচরা বাজারে এখনও পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে দ্বিগুণ দামে।

তেল, চাল, ডাল, চিনির পর এবার অস্থির পেঁয়াজের বাজার। এক সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে পণ্যটি। গেল সপ্তাহে রাজধানীতে যে পেঁয়াজের কেজি ছিলো ৩০ থেকে ৩৫ টাকা।

সেটি খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৫০-৬০ টাকায়। সুপার শপ কিংবা অভিজাত এলাকায় আরও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ।

ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) দৈনিক দ্রব্যমূল্য তালিকা অনুযায়ী, সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৫০ শতাংশ বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ বেশি দরে।

বাজারে প্রচুর সরবরাহ থাকা সত্ত্বেও দাম বৃদ্ধি পেঁয়াজ সিন্ডিকেটের কারসাজি বলে উল্লেখ করেন ক্রেতারা। তারা জানান, শুধু পেঁয়াজের দামই নয় প্রতিটি কাঁচা সবজির দাম বেড়েছে।

পেঁয়াজসহ দ্রব্যমূল্যে লাগাম টেনে ধরার জন্য সরকারিভাবে বাজার মনিটরিংয়েরও জোর দাবি করেছেন ক্রেতারা।

তবে উল্টো চিত্র পাইকারি বাজারে। রাজধানীতে পেঁয়াজের সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার শ্যামবাজারে একদিনেই কেজিতে ১০ টাকা পর্যন্ত কমে গেছে দাম।

আরও পড়ুন: পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ২৫ টাকা

কেজিতে দাম নেমে এসেছে ৩০-৩৫ টাকায়। ব্যবসায়ীরা বলছেন, বৃষ্টির জন্য দাম যেটুকু বেড়েছিল, সেটুকুও কমে যাবে দিন পনেরোর মধ্যে।

বাজারে অবশ্য এখনো পেঁয়াজের প্রচুর সরবরাহ। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যও বলছে, গেল অর্থ-বছরে দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন হয়েছে ৩৩ লাখ ৬২ হাজার ৩শ’ ৮২ টন। সরকারি সংস্থাটির প্রত্যাশা চলতি অর্থ-বছরে উৎপাদন হবে আরও বেশি পেঁয়াজ।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন