ঢাকা ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৯

পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সাশ্রয় ৮০০ কোটি টাকা

মুজাহিরুল হক রুমেন, একাত্তর
প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২২ ১৯:০৭:৩৫ আপডেট: ২০ মার্চ ২০২২ ১৯:৩৬:৩৬
পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সাশ্রয় ৮০০ কোটি টাকা

দেশের মেগা প্রকল্পগুলোর মধ্যে সবার আগে পূর্ণাঙ্গ রূপ পেলো ১৩২০ মেগাওয়াটক্ষমতার পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র। সোমবার (২১ মার্চ) এর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ করার পাশাপাশি, অত্যাধুনিক এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিনির্ধারিত খরচের চেয়ে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা কমে নির্মিত হয়েছে।

পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতার তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। বর্তমান সরকারেরমেগা প্রকল্পগুলোর মধ্যে সবার আগে আলো ছড়িয়েছে এই প্রকল্প।

এর মধ্যে ৬৬০ মেগাওয়াটের প্রথম ইউনিটটি উৎপাদনে আসে ২০২০ সালের ১৫মে। একই বছরের ৮ ডিসেম্বর উৎপাদনে আসে সমান ক্ষমতার দ্বিতীয় ইউনিটও।

তবে সঞ্চালন অবকাঠামো নির্মাণ শেষ না হওয়ায় কেন্দ্রটির পুরো বিদ্যুৎউৎপাদন ক্ষমতা কাজে লাগানো যাচ্ছে না।

বিদ্যুৎকেন্দ্রটির উৎপাদন ক্ষমতার বিষয়টি মাথায়রেখে সেখানকার উৎপাদিত বিদ্যুৎ যথাসময়ে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত করতে ২টি সঞ্চালন লাইন নির্মাণেরপ্রকল্পও হাতে নেয়া হয়েছে।

গোপালগঞ্জ থেকে বিদ্যুৎকেন্দ্র পর্যন্ত ১৬০ কিলোমিটারসঞ্চালন লাইন নির্মাণ করা হয়। কিন্তু, গোপালগঞ্জের গ্রিড থেকে ঢাকার আমিনবাজার পর্যন্তসঞ্চালন লাইনের কাজ এখনো শেষ হয়নি।

কয়লা ভিত্তিক এই বিদ্যুৎ কেন্দের কয়লা পরিবহনের জন্য আলাদা জেটি নির্মাণকরা হয়েছে। জাহাজে করে আসা সেই কয়লা ঢাকনা দেয়া বেল্টের মাধ্যমে কোল ডোমে এসে পৌছায়।

পরিবেশ সুরক্ষার জন্য সেই কোল ডোমও ঢাকনা দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে।নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহে এটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে জানান বিদ্যুৎ ও জ্বালানিপ্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

বাংলাদেশ চায়না পাওয়ার কোম্পানির যৌথ উদ্যোগে নির্মাণ করা এই বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছিল প্রায় ১৮ হাজার কোটি টাকা।

তবে ৮০০ কোটি টাকা কম ব্যয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই এর নির্মাণ কাজকরা শেষ হয়েছে বলে জানান কেন্দ্রটির প্রকল্প পরিচালক শাহ আবদুল মওলা।

বিশ্ব বাজারে জ্বালানির দাম বৃদ্ধির ফলে এই কেন্দ্রে উৎপাদিত বিদ্যুতেরপ্রতি ইউনিটের উৎপাদন খরচ দাড়িয়েছে প্রায় সাত টাকা।

তবে কয়লার দাম ও পরিবহন খরচ কমে এলে ইউনিট প্রতি খরচ ছয় টাকার নিচেআসবে। বর্তমানে সেখানে প্রতিদিন ৭০০ থেকে ১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হচ্ছে।



একাত্তর/এসএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

১০ দিন ৯ ঘন্টা আগে