ঢাকা ১৭ আগষ্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

সুচিত্রা সেন এক অশেষ ভালোবাসার নাম: মৌসুমী

বিশেষ প্রতিনিধি, নিউইয়র্ক
প্রকাশ: ৩১ মার্চ ২০২২ ১৯:১২:০২
সুচিত্রা সেন এক অশেষ ভালোবাসার নাম: মৌসুমী

'সুচিত্রা সেন এমন একটি ভালোবাসার নাম, যার কোন শেষ নেই।' এমনিভাবে কিংবদন্তী এই অভিনেত্রীর কথা স্মরণ করলেন বাংলাদেশের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী আরেক অভিনেত্রী মৌসুমী। 

উপমহাদেশের কিংবদন্তি নায়িকা সুচিত্রা সেনের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে হয়ে গেলো দু'দিনব্যাপী একটি চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। নবান্ন হলরুমে এ উৎসবের আয়োজন করে সুচিত্রা সেন মেমোরিয়াল ইউএসএ। 


বুধবার (৩০ মার্চ) এই উৎসবের উদ্বোধন করেন তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌসুমী।

তিনি জানান, সুচিত্রা সেন অভিনিত এমন কোন চলচ্চিত্র নেই যেটি তিনি দেখেননি। এই মহানায়িকাকে অনুসরণ করেই তার মতো অনেকেই চলচ্চিত্রে পা রেখেছেন বলে মন্তব্য করেন তিনি। 

পরে সুচিত্রা সেন অভিনিত একটি চলচ্চিত্র থেকে 'এই পথ যদি না শেষ হয়, তবে কেমন হতো তুমি বলতো' গানের অংশবিশেষ তিনি গেয়ে শোনান। মিলনায়ন ভর্তি দর্শকরা তখন আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।   

অনুষ্ঠানে বাংলা চলচ্চিত্রের একাল-সেকাল নিয়ে আলোচনা করেন বিশিষ্টজনেরা। এরপর সুচিত্রা সেন অভিনীত চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়। উৎসবের প্রথমদিন একটি ছবি প্রদর্শিত হয়।

সুচিত্রা সেন মেমোরিয়াল ইউএসএ-র কর্ণধার  গোপাল সান্যাল বলেন, 'মহামারি কাটিয়ে বিরতির পর আবার আমরা মিলিত হয়েছি। চা-কফি খেতে খেতে উত্তম-সুচিত্রা অভিনীত ছবি দেখে নষ্টালজিয়ায় ভর করে দর্শকরা ঘরে ফিরবেন।'

তিনি আরও বলেন, 'একজন অসাধারণ এবং কিংবদন্তি অভিনেত্রী সুচিত্রা সেন আমাদের অহংকার। তিনি কালজয়ী, অসংখ্য মানুষের হৃদয়ে চির অবস্থান নিয়ে আছেন। এই উৎসবের মধ্য দিয়ে তার অসামান্য কাজকে উদযাপন করছি আমরা।'    

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ, সাংবাদিক মনজুর আহমেদ, ফজলুর রহমান, কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট নাসির উদ্দিন খান পল, অভিনেত্রী রেখা আহমেদ। সুচিত্রা সেন মেমোরিয়াল ইউএসএ এর কর্ণধার গোপাল সান্যালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাংস্কৃতিক কর্মী স্বাধীন মজুমদার।    

কিংবদন্তী নায়িকা সুচিত্রা সেন ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল বাংলাদেশের পাবনা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর শৈশব ও কৈশোরের দিন কাটে পাবনা জেলার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর লেনে। ১৯৪৭-এ দেশভাগের পর সপরিবারে তাঁরা ভারতে চলে যান।

উত্তম কুমারের সঙ্গে সুচিত্রা সেন জুটির অভিনয় জনপ্রিয়তার সকল সীমানা ছাড়িয়ে গেছে। ভারত এবং বাংলাদেশে উত্তম-সুচিত্রা আজও জনপ্রিয়।


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৫ দিন আগে