ঢাকা ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯

অপচিকিৎসার আখড়া মক্কা-মদিনা হাসপাতাল আবারো চালু!

ইশতিয়াক ইমন, একাত্তর
প্রকাশ: ০৬ মে ২০২২ ১২:৫৫:৩৯ আপডেট: ০৬ মে ২০২২ ১২:৫৮:১৪
অপচিকিৎসার আখড়া মক্কা-মদিনা হাসপাতাল আবারো চালু!

হাসপাতালটির নাম মক্কা মদিনা। রোগীদের অভিযোগ, দুই পবিত্র স্থানেরনামে হাসপাতালটির নাম হলেও, এমন কোন অপকর্ম নেই যা এখানে হয় না।

দুই বছর আগে ওটি বয় দিয়ে রোগীর অস্ত্রোপচারের দায়ে হাসপাতালটি সিলগালা করেছিল র‌্যাব। কিন্তু সেই হাসপাতালটি আবারও দুস্থ রোগীদের চিকিৎসার নামে ব্যবসায় ফিরেছে।

আবারো শুরু করেছে, চিকিৎসার নামে প্রতারণা। যার কিছু প্রমাণ একাত্তরের হাতে এসেছে। সেই সব সূত্র ধরেই চলেছে অনুসন্ধান।

আট জনের পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম মো: ফারুক সড়ক দূর্ঘটনায় আহতহন কুমিল্লায়। বামপায়ের গোড়ালির অংশটি প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

স্থানীয় একটি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর উন্নত চিকিৎসার জন্যতাকে পাঠানো হয় ঢাকায়। ফারুকের অভিযোগ অ্যাম্বুলেন্স চালক জোর করে তাকে মোহাম্মদপুরের মক্কা মদিনা জেনারেল ভর্তি করায়। আর আসার সাথে সাথেই তার পা কেটে ফেলা হয়।

স্বজনদের অভিযোগ, পায়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ কেটে ফেলার আগেএমনকি তার পরিবারের সম্মতিটুকুও নেয়া হয়নি। অপারেশনের পর ভয় দেখিয়ে বোনের কাছ থেকে আদায় করা হয় সই। অথচ নিয়ম অনুযায়ী এই সই নিতে হয় অপারেশনের আগে।

২০ শয্যার এই হাসপাতালে ভর্তি থাকা তিন জন রোগীকেই দালালরা সেখানেভর্তি হতে বাধ্য করেছেন। হাত ভাঙ্গার দুই সার্জারি ওষুধ আর বেড ভাড়া মিলিয়ে এক রোগীকে বিল দিতে হবে চার লাখ টাকা। সেই টাকা পরিশোধে এখন ঘুম হারাম তার স্বজনের।

এসব অনিয়ম নিয়ে হাসপাতলের মালি কপক্ষকে পাওয়া না গেলেও মালিকের ভূমিকায় হাজির হন কর্তব্যরত এক নারী চিকিৎসক।

টঙ্গী ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করা এই চিকিৎসকের দাবি তিনি সাত বছর ধরে এখানে চাকরি করলেও দুই বছর আগে র‌্যাবের অভিযানের সময় তিনি গ্রামের বাড়ি ছিলেন।

মক্কা মদিনা হাসপাতলটির পরিচালনার দায়িত্বে থাকা উচ্চ মাধ্যমিক পাস করা হিসাব বিভাগের এক কর্মকর্তার দাবি আদালতের অনুমতি নিয়েই তারা হাসপাতাল চালু করেছেন।যদিও সেই কাগজ তারা দেখাতে পারেনি।

হাসপাতালটির মালিক তিন জন হলেও মূল পরিচালনাকারী হলেন নূরনবী। দুইবছর আগে ওটি বয় দিয়ে অপারেশন করানোর অভিযোগে হাসপাতালটি সিলগাল করেছিলো ভ্রাম্যমান আদালত।

দুই মালিকসহ তিনজনকে দেয়া হয় এক বছরের কারাদন্ড। কিন্তু কিভাবে হাসপাতালটিআবারও চালু হলো সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। সেই জবাব নিয়েও হাজির হবে একাত্তর।



একাত্তর/এসএ

মন্তব্য

Asadul Hossain

Thanks Ekattor TV for brining this to mass people. Your bold reporting saves many common people’s sufferings. You should do series report on this so that authorities can take proper actions against fraud hospitals like this.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

১০ দিন ১১ ঘন্টা আগে