ঢাকা ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

আবারো দক্ষ কর্মী নিতে শুরু করেছে দক্ষিণ কোরিয়া

ঝুমুর বারী, একাত্তর
প্রকাশ: ১৩ মে ২০২২ ১২:৪৫:৪৫ আপডেট: ১৩ মে ২০২২ ১২:৪৫:৫৬
আবারো দক্ষ কর্মী নিতে শুরু করেছে দক্ষিণ কোরিয়া

প্রায় ১৯ মাস বন্ধ থাকার পর আবারো শুরু হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াতে কর্মী যাওয়া। প্রথম ধাপেই ঢাকা ছেড়ে গেছেন ১২৩ জন দক্ষ কর্মী। 

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী বলছেন, শ্রমবাজারে ব্যাপক চাহিদা থাকা দক্ষিণ কোরিয়ায় কর্মীদের সামাজিক গ্রহনযোগ্যতা বাড়ানো গেলে বছরে ৫০ হাজার কর্মী পাঠানো সম্ভব। 

একই কথার প্রতিধ্বনি হলো এদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূতের কণ্ঠেও। তিনি আশ্বস্ত করেছেন, শিগগিরই বাংলাদেশের কোটা বাড়ছে। 

২০০৮ সালে এমপ্লয়মেন্ট পারমিট সিস্টেম- ইপিএস এর আওতায় বাংলাদেশ থেকে উচ্চ বেতনে কর্মী নেয়া শুরু করে দক্ষিণ কোরিয়া। 

কাজের তেমন দক্ষতা না থাকলেও কেবল ভাষা জানা থাকলেই কর্মী নিয়ে থাকে দেশটি। যাদের প্রাথমিক বেতন হয় গড়ে দেড় লাখ টাকা।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৬টি দেশ থেকে কর্মী নেয় দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটিতে চাহিদার বিপরীতে এদেশে দক্ষ জনবল থাকার পরও প্রতিবছর দুই হাজারের বেশি কর্মী পাঠানো সম্ভব হয় না। 

করোনা মহামারীর কারণে গেলো দুই বছরে সেই সংখ্যাও নেমেছিলো শূণ্যের কোঠায়। কারণে বিদেশিদের জন্য দুয়ার বন্ধ করেছিলো দেশটি। এখন তা আবার খুলেছে দক্ষিণ কোরিয়া। বাংলাদেশে নিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং কিউন বলছেন, বাংলাদেশের জন্য দ্রুতই কোটা বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে দক্ষিন কোরিয়া থেকে ২০২০-২১ অর্থবছরে ২০৯.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিটেন্স এসেছে।

একাত্তর/এআর

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন