ঢাকা ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

কিশোরকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার তিন

নিজস্ব সংবাদদাতা, গলাচিপা
প্রকাশ: ১৩ মে ২০২২ ২৩:০১:০০
কিশোরকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার তিন

পটুয়াখালীর গলাচিপায় চুরির অপবাদ দিয়ে মুন্না (১৬) নামে এক কিশোরকে লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে গলাচিপা থানা পুলিশ। 

শুক্রবার (১৩ মে) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের বাড়ি থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা হচ্ছেন- ওই কিশোরের মামী মমতাজ (৪৫), মামাতো বোন তানিয়া (৩০) এবং প্রতিবেশি শামীম (৪০)।

ওই কিশোরকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর তার পরিবারের পক্ষ থেকে করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম আর শওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, চুরির অপবাদে গাছে বেঁধে কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

তিনি জানান, কিশোর মুন্নার বাবা নিজাম রাড়ি ঢাকায় দিনমজুরের কাজ করেন এবং তার সৎ মা কয়েকদিন আগে তার স্বামীর কাছে ঢাকায় বেড়াতে যান। 

ঘটনাসূত্র: শিকলে বেঁধে নির্যাতনের পর নিখোঁজ ভুক্তভোগী কিশোর

এসময় মুন্না একই বাড়িতে তার মামার ঘরে থাকতো। ৯ মে রাতে মামার ঘরে ঘুমাতে গিয়ে মুন্না তার মামাতো বোন তানিয়ার স্বামীর ব্যাগে রাখা ৮০ হাজার টাকা চুরি করেছে, এমন অভিযোগে মুন্নাকে গাছের সাথে বেঁধে কয়েক দফায় মারধর করা হয়। 

নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে বিষয়টি জানাজানি হয়। তবে ঘটনার পর থেকে কিশোর মুন্না নিখোঁজ রয়েছে। 


একাত্তর/এসজে

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন