ঢাকা ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

ভুয়া ফেসবুক লাইভ: হেফাজত কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু

নাদিয়া শারমিন
প্রকাশ: ২১ এপ্রিল ২০২১ ১৫:৫৭:১৮ আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০২১ ১৪:২৮:২৫

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হককে গ্রেফাতারের পর ফেসবুকের ওয়াচপার্টি ভরে গেছে ভুয়া লাইভে। 

সেখানে মামুনুল লিখে সার্চ দিলেই মিলছে মামুনুলকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ চলছে দাবি করে প্রচারিত প্রচুর লাইভ ভিডিও। 

অথচ সত্যিটা হল, এই লকডাউনে মধ্যে মামুনুলকে গ্রেফতারের পর দেশের কোথাও কোন প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়নি। রাস্তায় নামেনি হেফাজত কর্মীদের কেউই। 

বিশেষ অ্যাপ ও সফটওয়ার ব্যবহারের মাধ্যমে মোবাইল কিংবা কম্পিউটারের স্ক্রিনে পুরনো ভিডিও চালিয়ে সেই ভিডিওকে প্রচার করা হয় লাইভ হিসেবে। 

আর এভাবেই প্রযুক্তির অপব্যবহার করে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে হেফাজতের কর্মী-সমর্থকরা। 

এবার ভুয়া লাইভ প্রচারকারীদের বিরুদ্ধেও কঠোর হচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। 

এরইমধ্যে ভুয়া লাইভ প্রচারকারী ফেসবুক আইডি ও পেইজগুলো শনাক্ত করেছে পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট। যার প্রেক্ষিতে গ্রেফতার হয়েছে দুইজন। 

পুলিশের সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম বিভাগের (সিটিটিসি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার নাজমুল ইসলাম একাত্তরকে জানান, ভুয়া লাইভ প্রচারকারী ১৫টি ফেসবুক আইডি ও পেইজকে নিয়ে ইতিমধ্যে শাহবাগ ও পল্টন থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই মামলার প্রেক্ষিতে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

এদিকে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালম কমান্ডার খন্দকার আল মঈন একাত্তরকে জানান, র‍্যাব অনলাইন মিডিয়া সেলের মাধ্যমে আসল ও ভুয়া ফেসবুক লাইভ ভিডিও পাশাপাশি উপস্থাপন করে মানুষকে বিভ্রান্তর হাত থেকে মুক্ত রাখার প্রয়াস চালানো হচ্ছে। 

এদিকে ফেসবুকে প্রচারিত এসব ভুয়া লাইভের বিষয়ে তেমন কিছুই করার নেই বলে জানায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। বিটিআরসি'র ভাইস চেয়ারপারসন সুব্রত রায় মৈত্র একাত্তরকে বলেন, 'বিটিআরসি শুধুমাত্র এই বিষয়গুলো ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে জানাতে বা অবগত করতে পারে। কারিগরি সক্ষমতা ও আইনি কাঠামো নিশ্চিত না করা পর্যন্ত এগুলো নিয়ন্ত্রণ দুরূহ।' এক্ষেত্রে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান তিনি। 

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন