ঢাকা ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

বড়ো বোন‌কে বেঁধে রে‌খে ছোট বোন‌কে সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতি‌নি‌ধি, শেরপুর
প্রকাশ: ১৭ মে ২০২২ ১৯:১০:৫৩ আপডেট: ১৭ মে ২০২২ ১৯:১৩:১২
বড়ো বোন‌কে বেঁধে রে‌খে ছোট বোন‌কে সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণ

শেরপুরে বড়ো বোনের বাড়িতে বেড়াতে এসে সঙ্ঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ছোট বোন (১৮)। সোমবার (১৬ মে) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘ‌টে।

ভিকটিমের বড়ো বোন বাদি হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় পলাতক রয়েছেন আরও একজন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম হাফিজুর রহমান ওরফে মন্টু (৩৫)। পলাতক ব্যক্তির নাম আলম মিয়া (২৭)। মন্টু লছমনপুর ইউপির লছমনপুর গ্রামের ও আলম একই ইউনিয়নের হাতি আগলা গ্রামের বাসিন্দা।

ভিক‌টি‌মের স্বজনরা জানান, গত দুইদিন আগে গাজীপুর থেকে ছোট বোন শেরপুর পৌর এলাকার চকপাঠক মহল্লায় বড়ো বোনের বাসায় বেড়াতে আসে। 

পরে সোমবার (১৬ মে) বিকেলে বড়ো বোনকে সঙ্গে নিয়ে ছোট বোন সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামে চিকিৎসার জন্য এক কবিরাজের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। কবিরাজের বাড়ির যাওয়ার পথে সন্ধ্যা হয়ে আসে। এ সময় হাফিজুর রহমান মন্টু ও আলম মিয়া তাদের গতিরোধ করে বড়ো বোন‌কে ওড়না দিয়ে বেঁধে লেবু বাগানে রাখে। পরে তারা ছোট বোন‌কে তু‌লে নি‌য়ে ওই লেবু বাগানে ধর্ষণ ক‌রে। 

এ সময় বড়ো বোনের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ছোট বোনকে উদ্ধার করে। ত‌বে ধর্ষকরা পা‌লি‌য়ে যায়।

এ ঘটনায় বড়ো বোন বাদি হয়ে রাতেই সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই রা‌তেই মন্টুকে গ্রেপ্তার করে।

আরও পড়ুন: অচেতন করে স্বামীকে হত্যা, স্ত্রী ও তার প্রেমিকের মৃত্যুদণ্ড

শেরপু‌রের অতিরিক্ত পু‌লিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া ব‌লেন, আলামত উদ্ধার এবং একজন ধর্ষককে গ্রেপ্তার ক‌রা হয়েছে। পলাতককে ধর‌তে অভিযান চলছে। ভিক‌টিম‌কে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

৪ দিন ১৬ ঘন্টা আগে