ঢাকা ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

খালেদা জিয়ার শ্বাসকষ্টের কারণ জানতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৩ মে ২০২১ ২১:৩৪:০০ আপডেট: ০৩ মে ২০২১ ২২:৫৮:৩৫
খালেদা জিয়ার শ্বাসকষ্টের কারণ জানতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার শ্বাসকষ্টের সঠিক কারণ জানতে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা যাবে। এর আগে সোমবার দুপুর তিনটার দিকে তীব্র শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়।

রাত ৮টার দিকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা সংলগ্ন তিনশ’ ফুট সড়কের সামনে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন এসব কথা জানান। এ সময় খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চান তিনি।

জাহিদ হোসেন বলেন, মানুষের যে কোনো সময় শ্বাসকষ্ট হতে পারে। পরীক্ষা-নিরিক্ষা চলছে এবং দেশি-বিদেশ বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কথা চলছে। পরে বিস্তারিত জানা যাবে। তবে শ্বাসকষ্টের কারণটি স্পষ্ট করে বলেননি ডা. জাহিদ।

তিনি আরও বলেন, শ্বাসকষ্টের পর খালেদা জিয়ার বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানো হয়েছে। আরও কিছু পরীক্ষা করা হচ্ছে। এরপর বিএনপি চেয়ারপার্সনের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো যাবে।

সিসিইউতে যখন কেউ ভর্তি থাকেন তখন তিনি স্বাভাবিক শ্বাসপ্রশ্বাস নেন উল্লেখ করে ডা. জাহিদ জানান, চিকিৎসকরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে এসেছেন এবং তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন। তবে খালেদা জিয়া এখন করোনামুক্ত কি না এমন প্রশ্নের কোন জবাব দেননি বিএনপির এই বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান

এদিকে হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, খালেদা জিয়ার রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা ঠিক রাখতে তাঁকে চার লিটার কৃত্রিম অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে।

খালেদা জিয়া গত ১১ এপ্রিল করোনা শনাক্ত হন। ১৫ দিন পরে দ্বিতীয় পরীক্ষাতে তাঁর পজেটিভ রিপোর্ট আসে। এরপর ২৭ এপ্রিল রাতে খালেদাকে এভারকেয়ারে ভর্তি করা হয়।

সেখানে সোমবার দুপুরের পর তাঁর হঠাৎ শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। পরে বিকেল ৪টার আগে খালেদা জিয়াকে সিসিইউতে নেওয়া হয়।

বিকেল ৩টায় তার জ্বর স্বাভাবিক ছিল। তবে ৩টা ২০ মিনিটে জ্বর মেপে জানায় ১০২ ডিগ্রী। বিকেল ৪টায় তখন অক্সিজেন দেওয়া হয় তখন তার শরীরে জ্বর ছিল ১০১ ডিগ্রী।

এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসক শাহাবুদ্দিন তালুকদারের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দায়িত্বে আছে।

একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন