ঢাকা ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

হেফাজতের সহিংসতায় অর্থ লেনদেন

টাকার হিসাব দিতে পারছেন না নেতারা

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৩ মে ২০২১ ২১:৫৮:৩৭ আপডেট: ০৪ মে ২০২১ ১২:৩০:৪৭
হেফাজতের সহিংসতায় অর্থ লেনদেন

২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হাটহাজারিসহ রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন স্থানে চালানো সহিংসতায় মাদ্রাসার ছাত্রদের যুক্ত করতে হেফাজতে ইসলাম টাকা ছড়িয়েছিল বলে দাবি করেছেন গোয়েন্দারা।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম সোমবার  সাংবাদিকদের জানান, নরেন্দ্র মোদীকে প্রতিরোধের কথা বলা সহিংসতা ঘটালেও হেফাজত নেতারা মূলত চেয়েছিলো ঐতিহাসিক বদর দিবসের আবেগকে কাজে লাফিয়ে করে ২০১৩ সালে শাপলা চত্বরের সমাবেশের মত আরেকটি সমাবেশ করতে। 

তাদের লক্ষ্য ছিল রমজান মাসেই সরকার পতনের জন্য আরো একটি বড় আন্দোলন গড়ে তোলা। আর এই পরিকল্পনার অংশই ছিল সারা বাংলাদেশে ২৬ মার্চের ধ্বংযজ্ঞ। 

এই গোয়েন্দা কর্মকর্তারা সাংবাদিকদের আরও জানান, হেফাজতে ইসলাম মূলত মাদ্রাসা ছাত্রদের মধ্যে টাকা ছড়িয়ে এসব সহিংসতা ও সরকারবিরোধী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছিলো। মাদ্রাসার এতিম শিশুদের পড়ালেখার এবং থাক-খাওয়ার কথা বলে সংগৃহীত দান বা জাকাত হিসেবে মানুষ যে টাকা দিয়ে থাকেন সেই টাকাই মূলত রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করেছে হেফাজতে ইসলাম। 

এই কর্মকর্তা আরও জানান হেফাজতের নেতাদের কাছে মাদ্রাসার আয়-ব্যয়ের হিসেব জানতে চাওয়া হলে নানারকম অসঙ্গতি বেরিয়ে আসছে।

উল্লেখ্য হেফাজত ইসলামের সেই তাণ্ডবে সারাদেশে নিহত হয় ১৭ জন। পুরো ব্রাহ্মণবাড়িয়া পরিণত হয় ধংসস্তুপে। 

 


একাত্তর/এআর



মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন