ঢাকা ১৮ আগষ্ট ২০২২, ২ ভাদ্র ১৪২৯

বাংলাদেশ মানুষের কৃমি নিয়ন্ত্রণে সফল

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২২ ২২:২৬:৪৬ আপডেট: ১৯ জুন ২০২২ ২২:৩১:১২
বাংলাদেশ মানুষের কৃমি নিয়ন্ত্রণে সফল

২০০৬ সাল থেকে চলে আসা কৃমি নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচিতে বাংলাদেশের উন্নতি অন্যান্য দেশের জন্য উদাহরণ বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি আন্তোনিও সন্তোষ।

রোববার (১৯ জুন) রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে কৃমি রোগ প্রতিরোধের উপর আয়োজিত সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। 

আন্তোনিও বলেন, বিশ্বের ১০০টি দেশে কৃমি প্রতিরোধ কর্মসূচী পরিচালিত হচ্ছে। এসকল দেশে কৃমি রোগের প্রধান কারণ সাধারণত দূষিত পানি ও অনিরাপদ পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা। তবে এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নতি অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক ভালো।

তথ্য অনুযায়ী, ২০০৬ সাল থেকে শুরু হয়ে পরবর্তীতে ৬৪ জেলায় এই কৃমির ওষুধ খাওয়ানোর কর্মসূচি পালিত হয়ে আসছে। পূর্বে কৃমি রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় ৮০ শতাংশ থাকলেও বর্তমানে তা কমে ৭ শতাংশে নেমে এসেছে।

তিনি আরো বলেন বাংলাদেশের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত অনেক অনেক বড় রাষ্ট্রে। সেখানে তারা ক্রমান্বয়ে রাজ্যগুলোতে এই কর্মসূচী পরিচালনা করছে। তবে বাংলাদেশ একটি জনবহুল দেশ হওয়া সত্ত্বেও খুব দ্রুতই কৃমি প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাংলাদেশে অবস্থানরত মেডিকেল অফিসার ডা. অনুপমা হাজারিকা বলেন, কৃমি নিয়ন্ত্রনে বাংলাদেশের নিজস্ব পরিকল্পনা ও অপারেশনগুলো প্রশংসার দাবিদার। বিশেষ করে ক্ষুদে ডাক্তার প্রজেক্ট, যা শিশুকাল থেকেই স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন করে তুলে। এতে করে শিশুরা এবং তাদের পরিবার এ বিষয়ে সচেতন হচ্ছে।

জনসন এন্ড জনসন প্রোগ্রাম লিডার লিন লিউনার্দো বলেন, কৃমি নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচিতে পুরো বিশ্বে জনসন এন্ড জনসনের অনুদানের ৪০ শতাংশ পাচ্ছে বাংলাদেশ।

কৃমি নিয়ন্ত্রণের বাংলাদেশের ঈর্ষণীয় সফলতা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের অনুদানের সবচেয়ে বড় অংশটি বাংলাদেশ পাচ্ছে, যা মোট অনুদানের ৩ ভাগের ১ ভাগ।

আরও পড়ুন: বন্যায় উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলে বিপর্যয়ের মুখে বহু মানুষ

তিনি আরো বলেন, এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিয়া সফলতা অর্জন করেছে যা অন্য দেশগুলোর জন্য অনুসরণীয় একটি বড় জনসংখ্যা আছে যেখানে এই সফলতা অর্জন করা সহজ ছিলোনা।

উল্লেখ্য, জনসন এন্ড জনসন বাংলাদেশকে কৃমি রোগ নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও এইচ আইভি ও টিবি রোগ নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করে থাকে।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৬ দিন আগে