ঢাকা ১২ আগষ্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

পদ্মাসেতু শেখ হাসিনা নেতৃত্ব ছাড়া অসম্ভব ছিলো: চীনা রাষ্ট্রদূত

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ২০ জুন ২০২২ ১৮:৪৭:০৫
পদ্মাসেতু শেখ হাসিনা নেতৃত্ব ছাড়া অসম্ভব ছিলো: চীনা রাষ্ট্রদূত

বিশ্বব্যাংকের সরে যাওয়া, নানা মহলের আস্থার অভাব, অর্থের অনিশ্চয়তার পরেও আজকের যে পদ্মা সেতু তা শেখ হাসিনার মতো দূরদর্শী রাজনৈতিক নেতৃত্ব ছাড়া অসম্ভব ছিলো বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

তিনি ২৫ জুনকে বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে উল্লেখ করে সোমবার (২০ জুন) বলেন, যারা এই সেতু নিয়ে অখুশী তাদের বিষয়ে সতর্ক থাকা দরকার।

ঢাকার দূতাবাসে কয়েকজন সাংবাদিকের সাথে এক আলাপে খরস্রোতা পদ্মাকে বশে এনে সেতু নির্মাণ কতোটা চ্যালেঞ্জের ছিল সেই অভিজ্ঞতা বলেন সেতু নির্মাণে কারিগরি সহয়তাকারী চীনের প্রতিনিধি লি জিমিং।

এমন এক সেতু কেমন করে আজ থেকে ৭২ বছর আগে চীনের অর্থনীতির চাকা ঘুরাতে শুরু করেছিলো আর তখন বিদেশীরা কতোটা অসহযোগিতায় মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলো- সেই অভিজ্ঞাও তুলে ধরেন চীনের রাষ্ট্রদূত।

‘সেতু মানে পাথরের পথে সম্ভাবনার যাত্রা’ -চীনের এমন চলতি কথার উদাহরণ টেনে বুসানে জন্ম নেওয়া ৬০ বছর বয়সী এই কূটনীতিক বলেন, যে নেতা আজকের দিনটি দেখেছিলেন- পৃথিবীর অনেক দেশই এমন নেতৃত্ব পায়নি।

লি জিমিং চীনের প্রধান নদীতে সেতু বানিয়ে উহানকে জোড়া দিয়েছিল যে নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সেই চীনা মেজর কনস্ট্রাকশন কোম্পানির পদ্মা সেতু নির্মাণকে বিশেষ ঘটনা হিসাবে উল্লেখ করে বলেন, পদ্মার কীর্তিনাশা রূপ বার বার নকশা- প্রযুক্তিতে বদল এনেছে। এতে এমন প্রযুক্তিও ব্যবহার হয়েছে যা চীনের জন্য প্রথম।

আরও পড়ুন: পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে তিন সেতুর টোল মওকুফ

২০০৯ সালে যখন পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়- তখন সবাই হাত গুটিয়ে নিয়েছিল উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের প্রতি চীন আস্থা রেখেছে বরাবর। কারণ, এখানকার নেতৃত্ব আর নিজস্ব অর্থায়নের সক্ষমতা। এর ফল হিসাবে শুধু বাংলাদেশ নয় দক্ষিণ পশ্চিম এশিয়ার যোগাযোগ যুক্ত হবে সম্ভাবনার প্রান্তরে।

লি জিমিং বলেন, ঠিক যে সময় এমন একটা সেতুর দরকার ছিলো বাংলাদেশের তখনই যুক্ত হলো পদ্মা।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১১ দিন আগে