ঢাকা ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পদ্মা সেতু: শেষ হচ্ছে নদী পারাপারে দীর্ঘ দিনের ভোগান্তি

অহিদুল ইসলাম, একাত্তর
প্রকাশ: ২১ জুন ২০২২ ১৯:১৪:০৪ আপডেট: ২২ জুন ২০২২ ১৮:০৩:২৪
পদ্মা সেতু: শেষ হচ্ছে নদী পারাপারে দীর্ঘ দিনের ভোগান্তি

প্রতিদিন ফেরি, স্পিড বোট, বা লঞ্চে করে পদ্মা পাড়ি দিতে গিয়ে লাখো মানুষকে সীমাহীন ভোগান্তি পোহাতে হয়। সেতু হওয়ায় এখন দু'তিন ঘণ্টায় পৌঁছানো যাবে ওপারের গন্তব্যে। 

তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছেন পদ্মা পাড়ের মানুষ। তাদের অনেকেই জানিয়েছেন, জীবদ্দশায় পদ্মা সেতু হবে সেটি ছিলো অলীক এক কল্পনা। 

শরিয়তপুরের গোশাইর হাটের নিজাম উদ্দিন যাবেন ঢাকার মধ্য বাড্ডা মেয়ের বাড়ি ৷বাড়ির গাছের কাঁঠাল নিয়েছেন নাতি নাতনীদের জন্য। 

ঘর থেকে অটোরিক্সায় করে বাস উঠেছেন, তারপর মাদারিপুরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে লঞ্চে করে মাওয়ার কাঁঠালবাড়ি ঘাট। আবারও কাঁঠালের বোঝা উঠলো ষাটোর্ধ নিজাম উদ্দিনের মাথায়। 

আনিমা রানীও যাবেন ঢাকায় মেয়ের বাড়ি। আম কাঁঠাল, নারিকেল বেঁধে নিয়েছেন বস্তায়। নষ্ট হবার ভয়ে কুলিদের উপর ভরসা করতে পারেননি। তাই নিজের কোলেই তুলে নিলেন ভারি বস্তা। 

এমন গল্প দক্ষিণাঞ্চলের ২২ জেলার মানুষের লাখ লাখ মানুষের। যারা প্রতিদিন এই পথ দিয়ে যাতায়াত করেন। বছরের পর বছর ধরে পথের কষ্ট মাথায় নিয়ে প্রয়োজনের গন্তব্য পাড়ি দেন। 

ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহারকারীদের ফেরিতে উঠার ঝক্কি বাদ দিলেও এই পথ ব্যবহার করে লঞ্চ, ফেরি বা স্পিড বোটে যাতায়াত করা মানুষ এখন আনন্দে ভাসছেন। 

বর্ষায় পদ্মা যখন ভয়ংকর রূপ নেয়, তখন ছোট নৌযানে নদী পাড়ি দেয়া অনেকটা প্রাণ হাতে নেয়ার মতো। আর ফেরিঘাটে সারা বছর মানুষকে ভুগতে হয়েছে যানবাহনের দীর্ঘ লাইনে।

প্রতিনিয়ত লঞ্চ বা ফেরিতে পার হওয়া মানুষেরা একন তাকিয়ে থাকেন দূরের স্বপ্নের সেতুর দিকে। আনন্দে ভরে উঠে মন, দীর্ঘ দিনের কষ্টের দিন শেষ হতে চলেছে এখন। 

সব কিছু মিলে পদ্মা নেহাত একটি সেতু নয়। তার চেয়েও যেনো বেশি কিছু। কারণ এই সেতু গোটা দেশের মানুষকে যেনো এক সুতায় গাঁথতে চলেছে। বাংলাদেশ পেরেছে। 

শুধু তাই নয়, ইন্দো-গাঙ্গেয় সমভূমিতে নির্মিত দ্বিতীয় বৃহত্তম সেতু হতে চলেছে পদ্মা সেতু। সেই দিকে থেকেও বিশ্বের বিষ্ময় হয়ে থাকবে বাংলাদেশ। 


একাত্তর/এআর


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

৫ দিন ১ ঘন্টা আগে