ঢাকা ১২ আগষ্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

বঙ্গবন্ধু মহাসড়কের টোল ঠিক করে প্রজ্ঞাপন জারি

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২২ ২০:৩২:৩৫ আপডেট: ২৯ জুন ২০২২ ২২:৩১:০১
বঙ্গবন্ধু মহাসড়কের টোল ঠিক করে প্রজ্ঞাপন জারি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে চলাচলকারী যানবাহন টোল পরিমাণ ঠিক করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। পদ্মা সেতু পারাপারের আগে ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ে নামে পরিচিত এই মহাসড়ক থেকে টোল নেবে সরকার। 

বুধবার (২৯ জুন) সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপ-সচিব (টোল ও এক্সেল লোড) ফাহমিদা হক খানের সই করা প্রজ্ঞাপনে বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে টোল আরোপের বিষয়টি জানানো হয়।

এর ফলে আগামী ১ জুলাই থেকে দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে ব্যবহারের জন্য যানবাহনকে টোল দিতে হবে। অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য সর্বনিম্ন ৩০ টাকা এবং সর্বোচ্চ এক হাজার ৬৯০ টাকা টোল নির্ধারণ করা হয়েছে এই মহাসড়কে চলাচলের জন্য। 

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে অন্তর্বর্তীকালীন সময়ের জন্য যানবাহনের শ্রেণি এবং টোল নির্ধারণ করা হলো। নির্ধারিত হার অনুযায়ী, ৫৫ কিলোমিটার ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়ের পুরোটা রাস্তা পাড়ি দিতে হলে মোটরসাইকেলকে ৩০ টাকা টোল দিতে হবে।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, এক্সপ্রেসওয়েতে চলতে সিডান কারকে ১৪০ টাকা, চার চাকার যানবাহন ও মাইক্রোবাসকে ২২০ টাকা, মিনিবাসকে ২৭৫ টাকা, মিনি ট্রাক ৪১৫ টাকা, বড় বাস ৪৯৫ টাকা, মাঝারি ট্রাক ৫৫০ ও ভারী ট্রাক ১,১০০ এবং ট্রেইলারকে ১,৬৯০ টাকা টোল দিতে হবে।

আরও পড়ুন: শিক্ষক উৎপল হত্যা মামলার তদন্তে ধীরগতি নেই: মারুফ

এক্সপ্রেসওয়ের যাত্রাবাড়ি-মাওয়া অংশে কেরানীগঞ্জের আবদুল্লাপুর ও মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে এক্সিট এন্ট্রি পয়েন্ট থাকবে। এই দুই এলাকা দিয়ে যানবাহন এক্সপ্রেসওয়েতে ঢুকতে ও বের হতে পারবে। আর পদ্মা সেতু ওপারে এক্সিট ও এন্ট্রি পয়েন্ট থাকবে পুলিয়াবাজার ও মালিগ্রামে। 

এক্সপ্রেসওয়ে থেকে টোল আদায় ও রক্ষণাবেক্ষণে কোরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে কর্পোরেশনকে (কেইসি) ৭১৫ কোটি টাকায় অপারেটর হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। তারা ১ জুলাই টোল আদায় করবে। প্রাথমিক পর্যায়ে ম্যানুয়ালি টোল আদায় করা হবে।


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১০ দিন আগে