ঢাকা ১৭ আগষ্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

ট্রেনের টিকেট জন্য কমলাপুর স্টেশনেই অস্থায়ী বসবাস

নাদিয়া শারমিন, একাত্তর
প্রকাশ: ০৩ জুলাই ২০২২ ২০:২৩:২৩
ট্রেনের টিকেট জন্য কমলাপুর স্টেশনেই অস্থায়ী বসবাস

ঈদ এগিয়ে আসলেই বদলে যায় কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের দৃশ্যপট। বিশেষ করে ট্রেনের আগাম টিকেট বিক্রি শুরু হবার পর থেকেই বদলে যায় স্টেশনের চিত্র।

রাত থেকেই যাত্রীরা জড়ো হতে থাকেন স্টেশনে। কাউন্টারের সামনে লাইন ধরনে। দাঁড়িয়ে বসে অপেক্ষার পর টিকেট বিক্রি শুরু হলে কারো মুখে হাসি, কারো মুখ কালো।

ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনের দাঁড়িয়ে থেকেও পাওয়া যাচ্ছে না কাঙ্খিত গন্তব্যের টিকেট। শুধু তাই নয় এবার পর পর তিন দিন লাইনে দাঁড়িয়েও টিকেট দেখা পাননি অনেকেই।

এদিকে সহজ ডটকমের অনলাইনেও সহজে মিলছে না টিকেট যদিও সহজ আর রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজারের দাবি, ঠিক ভাবেই টিকেট পাচ্ছেন যাত্রীরা

রোববারের সকালে কমলাপুর রেলটেস্টনে গিয়ে গিয়ে দেখা গেছে এক অভিনব দৃশ্যপট। সকালে কাউন্টারে টিকেট বিক্রি শুরু হবার যেমন টিকিটপ্রত্যাশীদের ভিড়, তেমনি টিকেট শেষেও তাই।

অর্থাৎ, এদিনে টিকেট বিক্রি শেষ হবার সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয়ে যায় পরের দিনের লাইন। এ যেন অনেকটা পিকনিকের বালিশ খেলার মতো অবস্থা।

প্রথমে টিকেট প্রত্যাশীদের ঢল আর, তারপরেই কাউন্টারে টিকিট বিক্রি বন্ধের পরেও পরদিনের টিকিটের অপেক্ষা সারিবদ্ধ মানুষের লাইন

দুদিন হল ঈদের টিকেটের জন্য কাউন্টারের সারিতে দাঁড়িয়ে আছেন জানাতান কিন্তু রোববারও হাতে আসেনি টিকেট তাই, সারির দ্বিতীয়জন হয়ে সোমবারের জন্য অপেক্ষা

সকালে টিকেট কাউন্টার খোলার ঘন্টাখানেকের মধ্যেই টিকেট শেষ এর আগে দফায় দফায় সারি ভঙ্গ করে ঢুকতে চাওয়া মানুষের বিবাদ এই অবস্থায় নজরদারি নেই রেলওয়ের পুলিশের

এই অবস্থায় বাধ্য হয়ে কিছুটা নিয়মের মধ্যে আনতে টিকিটপ্রত্যাশিরাই তৈরি করেছেন তালিকা
আগের দিন টিকেট না পাওয়া মানুষরা তালিকা ধরেই পরের দিন একই স্থানে দাঁড়াচ্ছেন

যদিও পরের দিন লাইনে দাঁড়ানো সবাই টিকিট পাবেন না, বলে জানিয়েছেন স্টেশন ম্যানেজার মাসুদ সারোয়ার। তিনি বলেন, আসনের বিপরীতে টিকেটের চাহিতা দশগুণ বেশি।

এমনকি সহজ ডট কমের অনলাইনে টিকিট কাটার ব্যবস্থাটাও একেবারেই কাজে আসছে না বলে অভিযোগ জানিয়েছেন অনেকেই

যাত্রীদের এসব অভিযোগটি মানতে নারাজ সহজের জনসংযোগ ব্যবস্থাপক ফারহাত আহমেদ। টিকেট বিক্রি শুরুর প্রথম মিনেটেই যে হারে লগইন হয়, তাতে সার্ভার বসে যাবার উপক্রম।

এই যখন অবস্থা, তখন আবার অনেকেই কয়েক দিনের জন্য পরিবার নিয়ে চলে এসেছেন কমলাপুর রেলস্টেশনে, থাকছেন রাতদিন ২৪ ঘন্টা


একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৫ দিন আগে