ঢাকা ২০ আগষ্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯

একই দিনে ঢাকায় বেইজিং ও ওয়াশিংটনের কর্মকর্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক, একাত্তর
প্রকাশ: ০৬ আগষ্ট ২০২২ ২১:৩১:৪৮ আপডেট: ০৬ আগষ্ট ২০২২ ২৩:১০:০৯
একই দিনে ঢাকায় বেইজিং ও ওয়াশিংটনের কর্মকর্তারা

তাইওয়ানে মার্কিন স্পিকার ন্যান্সি পোলোসির সফরকে কেন্দ্র করে চীন-তাইওয়ান উত্তেজনার মধ্যেই ঢাকা সফরে এসেছেন বেইজিং ও ওয়াশিংটনের শীর্ষ কর্মকর্তারা। 

দুদিনের সফরে শনিবার ঢাকায় পৌঁছান চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। তার এই সফরে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার পাশাপাশি নতুন কিছু চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হতে পারে।

শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক।

বিমানবন্দর থেকে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ধানমণ্ডি-৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে যান ওয়াং ই।

সেখানে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এ সময় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দেয়ার পর তিনি জাদুঘরটি ঘুরে দেখেন। পরিদর্শন বইতে সই করেন।

সন্ধ্যায় সাড়ে সাতটায় হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টাল হোটেলে তার সম্মানে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশের বাইরে থাকায় নৈশভোজের আয়োজক ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোববার সকাল সাড়ে সাতটায় হোটেল সোনারগাঁও হোটেলে দুদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এরপর সকাল সাড়ে ৯টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের কথা রয়েছে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানান, চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই সফরে পাঁচ থেকে সাতটি সমঝোতা স্মারক এবং চুক্তি সই হতে পারে।

এদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক সংস্থাবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিশেল জে সিসন চারদিনের সফরে ঢাকায় পৌঁছেছেন। 

শনিবার সন্ধ্যা ৬টার পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেন তিনি। বাংলাদেশ, ভারত ও কুয়েত সফর করবেন এই মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই সফর যুক্তরাষ্ট্রের বহুপাক্ষিক অগ্রাধিকারের বিষয়ে আলোচনার জন্য। 

অগ্রাধিকারের মধ্যে রয়েছে খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার বিরুদ্ধে লড়াই, বিশ্বস্বাস্থ্য, মানবাধিকার ও মানবিক চাহিদা, শান্তি রক্ষা ও শান্তি আনয়ন ও রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য সহায়তা।


একাত্তর/এসি

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৮ দিন আগে