ঢাকা ২০ আগষ্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯

চিলির কপার খনিতে রহস্যময় বিশাল গর্ত নিয়ে তোলপাড়

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৭ আগষ্ট ২০২২ ০০:৩৮:৪৮
চিলির কপার খনিতে রহস্যময় বিশাল গর্ত নিয়ে তোলপাড়

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলিতে প্রায় ২৫ মিটার (৮২ ফুট) ব্যাসের একটি রহস্যময় গর্ত বা সিঙ্কহোলের সন্ধান মিলেছে। চলতি সপ্তাহে দেশটির উত্তরাঞ্চলের একটি খনিতে গর্তটির অস্তিত্ব টের পায় কর্তৃপক্ষ। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও চিলির স্থানীয় গণমাধ্যমে গর্তটির বেশ কিছু ছবি প্রকাশিত হয়েছে। ছবিতে দেখা যায়, কানাডার লুনডিন মাইনিং নামের একটি কপার খনির জমিতে বিশালাকৃতির একটি গর্ত তৈরি হয়েছে। 

দেশটির রাজধানী সান্তিয়াগো থেকে উত্তর দিকে প্রায় ৬৬৫ কিলোমিটার দূরে ওই খনির অবস্থান। তবে গর্তটি ঠিক কিভাবে তৈরি হলো সে বিষয়ে কিছুই জানা যায়নি। ফলে স্থানীয়দের মনে তৈরি হয়েছে নানা শঙ্কা। 


চিলির ন্যাশনাল সার্ভিস অফ জিওলজি অ্যান্ড মাইনিং (সারনাজিওমিন) পরিচালক ডেভিড মন্টেনিগ্রো জানান, সিঙ্কহোল সম্পর্কে আরও তথ্য সংগ্রহ করতে বিশেষজ্ঞ কর্মী পাঠানো হয়েছে।

মন্টিনিগ্রো বলেন, নিচ থেকে প্রায় ২০০ মিটার (৬৫৬ ফুট) গভীর এটি। আমরা সেখানে কোনো উপাদান শনাক্ত করিনি, তবে আমরা প্রচুর জলের উপস্থিতি দেখেছি।

সেরনাজিওমিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যেকোনো দুর্ঘটনা এড়াতে সিঙ্কহোলের কাছে অবস্থিত আলকাপারোসা খনির প্রবেশদ্বার বন্ধ করা হয়েছে।

এদিকে সোমবার বিকেলে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে লুন্ডিন মাইনিং কোম্পানি জানায়, সিঙ্কহোলের কারণে কোনো শ্রমিক বা মানুষ কোনো ধরণের বিপদের সম্মুখীন হননি।  

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, গর্ত থেকে সবচেয়ে কাছের বাড়িটি প্রায় ৬০০ মিটার (২০০০ ফুট) দূরে, যেখানে কোনো জনবহুল এলাকা নেই। 

রয়টার্সের তথ্য মতে, লুন্ডিন মাইনিং কোম্পানিটি ওই খনির ৮০ শতাংশ সম্পত্তির মালিক এবং বাকিটা জাপানের সুমিটোমো কর্পোরেশনের হাতে। তারাও বিষয়টি গুরুত্বের সাথে পর্যবেক্ষণ করছে। 


একাত্তর/আরবিএস  

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

বাতাস যখন ভয়ঙ্কর-২

১ মাস ১৮ দিন আগে