ঢাকা ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯

সারের পর জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় বড় সংকটে কৃষি

হাবিব রহমান, একাত্তর
প্রকাশ: ০৮ আগষ্ট ২০২২ ২০:২৩:৩৪ আপডেট: ০৮ আগষ্ট ২০২২ ২২:১৮:৫৯
সারের পর জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় বড় সংকটে কৃষি

সারের পর জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার কারণে চিন্তায় পড়েছেন কৃষকরা এই দুইয়ের প্রভাবে ফসলের উৎপাদন খরচ যে হারে বাড়বে সে তুলনায় দাম পাবেন কিনা তা নিয়েই শঙ্কায় তার

বিশেষ করে আমন চাষীরা বলছেন, ডিজেলের দাম বাড়ায় এবার উৎপাদন খরচ বাড়বে মণ প্রতি কমপক্ষে দুইশ’ টাকা। ফলে ধানের দাম বাড়বে অবধারিতভাবে।

অন্যদিকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যদি কৃষকের ন্যুনতম লাভ নিশ্চিত না করা যায়, তাহলে ধানের উৎপাদন ব্যাহত হবে, প্রভাব ফেলবে গোটা কৃষিখাতেও।

দুঃসময়ে দেশের শেষ ভরসা ছিলো কৃষি। করোনার ছোবলে দেশ যখন থমকে ছিলো, তখনও কৃষির চাকা ছিল সচল। নির্ভরতার সেই কৃষি এখন বড় সংকটে।

কেননা দেশের প্রায় ৯০ ভাগ জমি চাষ হয় ডিজেল নির্ভর সেচ ব্যবস্থায় লিটারে ৩৪ টাকা বাড়ায় তাই সেচ নিয়ে চিন্তায় কৃষকরা

গত বছরের নভেম্বরে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম বৃদ্ধির ধাক্কায় দুর্ভোগে পড়েন কৃষক। এরপর গত সপ্তাহে বাড়ানো হয় সারের দাম।

এবার ডিজেল-কেরোসিনের নজিরবিহীন মূল্যবৃদ্ধি মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে দেখা দিয়েছে।  কৃষকের টিকে থাকাই এখন কঠিন হয়ে পড়বে বলে সংশ্নিষ্টরা মনে করছেন।

দীর্ঘদিন ধরে ডিজেল সেচ পদ্ধতিতে সিংগাইরে ধান উৎপাদন করেন মোহম্মদ সজীব বর্ষায়ও বৃষ্টির দেখা নেই তাই ধানি জমি শুকিয়ে চৌচির ডিজেলের দাম বাড়ায় চারদিন বন্ধ সেচযন্ত্র

জানালেন, ১৩ বিঘা জমিতে সেচ দিতে বিশ লিটার ডিজেল দরকার এতে একদিনে খরচ বেড়ে গেছে প্রায় ৬৮০ টাকা সে হিসেবে মৌসুমে ডিজেলেই মোট খরচ বাড়বে ১৩, ৬০০ টাকা

কৃষকরা বলছেন, জমি ভেদে বিঘায় ইউরিয়া সার দরকার ৪০ কেজি এতে বেড়েছে ২৪০ টাকা এছাড়া ডিজেলচালিত ধান মাড়াই মেশিনের ৬০০ টাকার জায়গায় দিতে হবে ৮০০ টাকা

এছাড়া কীটনাশক, শ্রমিক, যানবাহনেও খরচ বাড়বে সব মিলিয়ে মণ প্রতি ধান উৎপাদনে খরচ হবে প্রায় হাজার টাকা

বিদ্যুতের সেচেও সুবিধা করতে পাড়ছে না কৃষক খরার কারণে সেচ দিতে হচ্ছে দ্বিগুণ দুই ঘন্টা লোডশেডিংয়ের কথা থাকলেও দিনে বিদ্যুৎ যাচ্ছে চার-পাঁচবার

কৃষি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বর্তমানে প্রতিটি কৃষি উপকরণের দাম আকাশছোঁয়া। উৎপাদন খরচ বাড়লেও পণ্যের ন্যায্য দাম পান না কৃষক।

তাঁরা বলছেন, কৃষক না বাঁচলে উৎপাদন ব্যাহত হবে। হুমকিতে পড়বে খাদ্য নিরাপত্তা। ফলে সরকারের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কৃষকের স্বার্থে ভর্তুকি বাড়াতেই হবে।

তবে সরকার বলছে, তারা কৃষকের পাশে আছে। বিনামূল্যে বীজসহ নানা উপকরণ দেওয়া হচ্ছে। ভর্তুকি বাড়ানো হয়েছে। দাম বৃদ্ধির প্রভাব কৃষক পর্যায়ে পড়বে না।


একাত্তর/এআর

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৬ দিন ২৩ ঘন্টা আগে