ঢাকা ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯

রামায়ণ নিয়ে কুইজ জিতে দুই মুসলিম ছাত্রের চমক

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০৮ আগষ্ট ২০২২ ২১:৫৫:১১ আপডেট: ০৮ আগষ্ট ২০২২ ২২:১৭:১৪
রামায়ণ নিয়ে কুইজ জিতে দুই মুসলিম ছাত্রের চমক

রামায়ণ। প্রাচীন ভারতীয় সূর্যবংশীয় রাজাদের কাহিনী অবলম্বনে মহর্ষি বাল্মীকি রচিত সংস্কৃত মহাকাব্য। অযোধ্যার রাজা দশরথের পুত্র রামচন্দ্রের জীবন-কাহিনী এর মুখ্য বিষয়।

এই মহাকাব্যটি সপ্তকাণ্ড বা সাত খণ্ডে বিভক্ত। সপ্তকাণ্ডের প্রতিটি একাধিক সর্গ বা অধ্যায়ে বিভক্ত। কাব্যটি অনুষ্টুপ ছন্দে রচিত এবং শ্লোক সংখ্যা বিভিন্ন সংস্করণে ২৪-৪৩ হাজার পর্যন্ত।

এমনই এক বিশাল মহাকাব্যের ওপর ভারতে আয়োজিত এক অনলাইন কুইজ জিতে সাড়া ফেলে দিয়েছেন কেরালা রাজ্যের দুই মুসলিম ছাত্র।

একটি প্রকাশনা সংস্থা আয়োজন করে প্রতিযোগিতাটি। সেখানে রামায়ণের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন ছিলো। অংশ নেয় এক হাজারের বেশি ছাত্র। বেছে নেয়া সেরা পাঁচজনকে।

সেই পাঁচজনের মধ্যেই ছিলেন এই দুই ছাত্র। এরা হলেন মোহাম্মদ জাবির পিকে এবং মোহাম্মদ বাসিত এম। দুজনেই কেরালার মালাপ্পুরমের ছাত্র।

তারা দুজনেই কেকেএইচএম ইসলামিক অ্যান্ড আর্টস কলেজ, ভ্যালেনচেরিতে ওয়াফি কোর্স করছেন। বিজয়ের পর বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ দুজনকে অভিনন্দন জানাতে শুরু করেছে।

দুজনেই জানিয়েছেন, ছোট থেকেই তারা রামায়ণ ও মহাভারতের কথা শুনেছেন। পরে পড়ে ভাল লেগেছে। তাদের কলেজের পড়াশোনার বিষয়ও এটিই।

আপনি যদি মুসলিম যুবক মোহাম্মদ বসিত এম কে রামায়ণ থেকে তার প্রিয় চৌপাই সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন, তিনি অবিলম্বে অযোধ্যাকাণ্ড' -এর চৌপাই পুনরাবৃত্তি করবেন রামায়ণের অযোধ্যা কাণ্ডের শ্লোক মুখস্থ বাসিতের। রাম যেখানে লক্ষণকে সাম্রাজ্য ও ক্ষমতার অসারতা বিশদভাবে ব্যাখ্যা করছেন, সেই অধ্যায়টি তার সবচেয়ে প্রিয়।

বাসিত ও জাবির দুজনেই মনে করেন ভারতের বাসিন্দা হিসেবে সবার রামায়ণ ও মহাভারত জানা জরুরি। কারণ এ থেকে ভারতের সংস্কৃতি সম্পর্কে বিশদ ধারণা পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন: চটের শাড়ি-ব্লাউজ পরে নন্দিত ও নিন্দিত মনামী

জাবির বলেছেন, আমাদের অবশ্যই রামের মতো চরিত্র এবং রামায়ণের মতো মহাকাব্যের বার্তা থেকে অনুপ্রেরণা নিতে হবে।

অন্যদিকে বাসিত বলেছেন, কোনো ধর্মই ঘৃণার প্রচার করে না, শুধু শান্তি ও সম্প্রীতির প্রচার করে। সবারই সব ধর্মের বিভিন্ন গ্রন্থগুলো পড়া উচিত।


একাত্তর/আরএ

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছাদ খোলা অভিবাদন!

ছাদ খোলা অভিবাদন!

৬ দিন ২২ ঘন্টা আগে