ঢাকা ১৫ জুন ২০২১, ১ আষাঢ় ১৪২৮

শাহজালালে হ্যাঙ্গারের নতুন ভাড়ায় বিপদে বেসরকারি অপারেটররা

পারভেজ রেজা
প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২১ ১৯:১৭:২৪ আপডেট: ০৮ জুন ২০২১ ২১:৫৪:২৪
শাহজালালে হ্যাঙ্গারের নতুন ভাড়ায় বিপদে বেসরকারি অপারেটররা

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেসরকারি হেলিকপ্টার ও বিমান রাখার হ্যাঙ্গার ভাড়া অস্বাভাবিক বৃদ্ধির কারণে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা করছে অ্যাভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ। 

এতে করে রোগীসহ জরুরি পরিবহন কাজে হেলিকপ্টার ভাড়াও অনেক বেড়ে যাবে। এ অবস্থায় কোনভাবেই প্রতিযোগিতামূলক ব্যবসা চালানো যাবে না বলে তারা মনে করেন। 

ব্যবসায়িক কাজে ঢাকা থেকে দূরের জেলায় যেতে বা বিদেশী ক্রেতাদের কারখানা দেখাতে হেলিকপ্টারকেই বেছে নেন নানা পর্যায়ের উদ্যোক্তারা। এছাড়া প্রত্যন্ত এলাকা থেকে প্রতিদন গড়ে কমপক্ষে দশজন রোগী হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আসেন। 

এতোদিন নিজ উদ্যোগে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে হ্যাঙ্গার নির্মাণ করে হেলিকপ্টার রাখতো বেসরকারি অপরেটররা। কিন্তু তৃতীয় টার্মিনাল নির্মানের কারণে সেসব হ্যাঙ্গার এখন ভাঙ্গা পড়বে। 

সেজন্য বিমানবন্দরের উত্তর দিকে নতুন হ্যাঙ্গার নির্মাণ করে দিচ্ছে সিভিল অ্যাভিয়েশন। কিন্তু সেই হ্যাঙ্গারের জন্য অস্বাভাবিক ভাড়ার প্রস্তাব করেছে সিভিল অ্যাভিয়েশন। 

প্রতিবর্গ মিটারে ৮৫ টাকা হিসেবে ‘এ’ টাইপ হ্যাঙ্গারের জন্য মাসে ৩২ লাখ টাকা। আর ‘বি’ টাইপ হ্যাঙ্গারের জন্য মাসে ৪৫ লাখ টাকা। 

যা কোম্পানীগুলোর সাধ্যের বাইরে মনে করেন এভিয়েশন অপারেটরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশেন মহাসচিব মফিজুর রহমান।

তিনি জানান, শুধু হ্যাঙ্গার নয়। সামনের অ্যাপ্রোন এলাকার ভাড়াও দিতে হবে। সেই সঙ্গে দিতে হবে সেখানে জায়গার ভাড়াও। সবমিলে ব্যবসায় হুমকি দেখছেন তারা। 

আর, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান জানিয়েছেন, হ্যাঙ্গার ভাড়া যাতে যৌক্তিক পর্যায়ে থাকে তা পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক বাস্তবতায় হেলিকপ্টার সার্ভিসকে এখন বিলাসিতা নয়, জরুরি পরিবহন সেবা হিসেবে মুল্যায়ণের তাগিদ দিয়েছে এভিয়েশন অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন। 


একাত্তর/এআর

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন