ঢাকা ১৫ জুন ২০২১, ১ আষাঢ় ১৪২৮

নুর কবীর: রোহিঙ্গা শিবির থেকে শরীরচর্চার বিশ্বমঞ্চে

নাজমুল রানা
প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২১ ২০:২৪:০২
নুর কবীর: রোহিঙ্গা শিবির থেকে শরীরচর্চার বিশ্বমঞ্চে

রোহিঙ্গা শিবির থেকে জীবনের নানা বাঁক দেখে বডিবিল্ডিংয়ের মঞ্চে বাজিমাত করেছেন নুর কবীর। মিয়ানমারের নিপীড়নের বিষের জবাব দিয়েছে বিশ্বমঞ্চে বাজিমাত করে। বলেছেন, তিনি চান সব রোহিঙ্গা ঘুরে দাঁড়াক, সব শরণার্থী এভাবেই বিশ্ব জয়ের গল্প লেখুক। 

জীবন বাঁচাতেই রোহিঙ্গাদের জীবন হারানোর জনযুদ্ধে, নিরন্তর নীল দরিয়ায় ভেসে চলা, চাই একটু আশ্রয়, চাই দু’বেলা দু’মুঠো খাবারের নিশ্চয়তা।

দিনের পর দিন যায় নৌকায়, ক্ষুদ্র জলতরীতে অসীম সায়র পাড়ি দেবার এই লড়াই অনেকেই হারায়; কেউ আবার পায় তীরের দেখা, কখনো আশ্রয় মেলে কোনো এক রাষ্ট্রীয় লঙ্গরখানায়, কখনো ভাগ্যে জোটে কারাগার, অবৈধ অনুপ্রেবেশের অভিযোগে।

তবুও বাঁচার অসীম নেশায় এরা ছুটে চলে ছুটে যায়, কেউ অনুপ্রবেশকারি বলে; কেউ খানিক সম্মান দিয়ে বলে উদ্বাস্তু, বাড়ায় সাহায্যর হাত।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় বাহিনীর নিপীড়নে ঘর ছাড়া নুর কবীর এই জলে ভাসা মানুষদেরই একজন, এমন কোনো এক গন্তব্যহীন বোটে চড়েই আশ্রয় নিয়েছিলেন ক্যাঙারু রাজ্য অস্ট্রেলিয়াতে। তারপর সাগর ঘেষা ডিটেনশন ক্যাম্প হয়েই তার বাইরের জীবনে আসা।

বাইরে এসেই ঘুরে দাঁড়িয়েছেন নুর, রোহিঙ্গা শরণার্থীর তকমা গায়ে মেখেই দাঁড়িয়ে গেছেন ব্রিজবেন বডি বিল্ডিং চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চে, করেছেন বাজিমাত। হয়েছেন সেরাদের সেরা। 

তবে ঘুরে দাঁড়ানোর গল্পটা যে অতো সহজ ছিলো না, সেকথাও জানিয়েছেন নিজেই। প্রথমে জুটেছিল গাড়ি চালানোর কাজ, সেখানেই আরেক শরণার্থীর সাথে পরিচয়।

তার পরামর্শেই বডি বিল্ডিংয়ের পথে হাঁটা, পোড় খাওয়ার বুকের বারুদটা জমিয়ে বিস্ফোরণ ঘটানোর জন্য চলেছে দারুণ অনুশীলন।

সাধনায় সিদ্ধি পাওয়া নুর চান, রোহিঙ্গারা তার মতো করেই আঁধার থেকে আলোতে আসুক, মুক্তির আনন্দে ভাসুক; আকাশ জুড়ে উড়াক ঘুড়ি, সবটুকু নীল করুক চুরি।


মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন