ঢাকা ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

মহাশূন্যে যাচ্ছেন ৮২ বছর বয়সী নারী

একাত্তর অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ০১ জুলাই ২০২১ ২২:৫২:৫৭ আপডেট: ০২ জুলাই ২০২১ ০৯:২৮:২১
মহাশূন্যে যাচ্ছেন ৮২ বছর বয়সী নারী

বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা সিইও জেফ বেজোসের মহাশূন্যে যাওয়ার স্বপ্ন বহুদিনের। সেই লক্ষ্যে বেশ কয়েক বছর ধরেই প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। অবশেষে তার স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। আগামী ২০ জুলাই তাকে নিয়ে মহাশূন্যের পথে পাড়ি দেবে নিজের প্রতিষ্ঠান ব্লু অরিজিনের রকেট 'নিউ শেপার্ড'। 

তবে, তার একার স্বপ্নই পূরণ হচ্ছে না। এমন একজনকে সাথী করে নিয়ে যাবেন তিনি, যার পিঠে নভোচারীর ডানা লাগার কথা ছিল প্রায় ৬০ বছর আগে। 


মার্কিন সেই নারীর নাম ওয়ালি ফাঙ্ক। ষাট এর দশকে যে ক'জন নারী মারকিউরি ১৩-এর অংশ হিসেবে মহাশূন্যে যাওয়ার জন্য প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন, তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি তার। কারণ- তিনি নারী। তখন নাসা'র নভোচারী হওয়ার সুযোগ পেতেন শুধু পুরুষ মিলিটারি পাইলটরা। 

আরও পড়ুন: চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আরও জোরদার হবে: প্রধানমন্ত্রী

যেতে পারলে মহাশূন্যে যাওয়া পৃথিবীর প্রথম নারী হতে পারতেন ওয়ালি। একটুর জন্য তার জায়গা নিয়ে নেন রাশিয়ান নভোচারী ভ্যালেন্তিনা তেরেসকোভা। তবে সেই রেকর্ড না হলেও, মহাশূন্যে যাওয়া সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তির রেকর্ড হতে চলেছে তারই। 

অবশেষে প্রায় ৬ দশক পর জেফ বেজোসের সাথে মহাশূন্যে যাচ্ছেন ওয়ালি। দশ মিনিটের এ যাত্রায় তাদের সঙ্গী হবেন জেফের ভাই মার্ক এবং আরও এক ব্যক্তি যার পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এক নিলামের মাধ্যমে সেই ব্যক্তিকে বেছে নেওয়া হয়েছে, যে নিলাম থেকে পাওয়া ২৮ মিলিয়ন ডলার খরচ করা হবে দাতব্য কাজে। 


বেজোসের ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রকাশ করা এক ভিডিওতে ওয়ালিকে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা গেছে। ভিডিওতে ওয়ালি বলেছেন, তিনি 'চমৎকার' অনুভব করছেন। 

৮২ বছর বয়সী ওয়ালি হবেন মহাশূন্যে যাওয়া পৃথিবীর সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি। এর আগে এই জায়গা ছিল ৭৭ বছর বয়সে মহাকাশে যাওয়া জন গ্লেন-এর। 



একাত্তর/এসজে 

মন্তব্য

এই নিবন্ধটি জন্য কোন মন্তব্য নেই.

আপনার মন্তব্য লিখুন